২৫ জানুয়ারি ২০২২ ১১:২৭:২২
logo
logo banner
HeadLine
২৪ জানুয়ারি ২০২২ : ৩৯.৯৫ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ৯৮৯ * ২৩ জানুয়ারি ২০২২ : ৩৮.৬৪ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ১০২৬ * ২৩ জানুয়ারি ২০২২ : ৩১.২৯ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ১০৯০৬, মৃত ১৪ * স্বাধীনতা রক্ষা ও গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে কাজ করার জন্য পুলিশ সদস্যদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান * ২১ জানুয়ারি ২০২২ : ২৮.৪৯ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ১১৪৩৪ জন, মৃত ১২ * আবারও করোনা সংক্রমণ বাড়ায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ৫ জরুরি নির্দেশনা * ২১ জানুয়ারি ২০২২ : ৩৩.০১ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ১০১৭ জন, মৃত ১ * করোনা সংক্রমণ বাড়ায় আগামী দুই সপ্তাহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী * ২০ জানুয়ারি ২০২২ : ২৬.৩৭ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ১০৮৮৮ জন, মৃত ৪ * বাংলাদেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না : প্রধানমন্ত্রী * ১৯ জানুয়ারি ২০২২ : ২৫.১১ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ৯৫০০ জন, মৃত ১২ * ১৯ জানুয়ারি ২০২২ : ৩০.৯৮ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ৯৮৯ জন, মৃত ১ * ১৫ জানুয়ারি ২০২২ : ১৪.৩৫ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ৩৪৪৭ জন, মৃত ৭ * ১৫ জানুয়ারি ২০২২ : ১২.২৯ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ২৩৯ জন * বাড়ছে না ভাড়া, অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলবে বাস *
     13,2022 Thursday at 11:13:46 Share

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এখন অনলাইনেই

পুলিশ ক্লিয়ারেন্স এখন অনলাইনেই

এখন থেকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স নিতে নগরবাসীকে আর সিএমপির ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টারে যাওয়ার প্রয়োজন পড়বে না। অনলাইনেই আবেদন করে ঘরে বসে পাওয়া যাবে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট। এজন্য বিদেশগামী বা বিদেশে বসবাসকারী বাংলাদেশি নাগরিকরা দেশে বা দেশের বাইরে যে কোন স্থানে বসে কম্পিউটার বা ল্যাপটপ কিংবা মোবাইল ফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার করে pcc.police.gov.bd ঠিকানায় অথবা বাংলাদেশ পুলিশের ওয়েবসাইটে www.police.gov.bd. গিয়ে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স মেন্যুতে ক্লিক করে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। গতকাল রোববার ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ টেলিকম অডিটরিয়ামে ‘অনলাইন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স’ সেবা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

সিএমপির জনসংযোগ কর্মকর্তা অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আনোয়ার হোসেন বলেন, বিদেশে যাওয়া বা বিদেশে চাকুরির ক্ষেত্রে সচরাচর পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট প্রয়োজন হয়। পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট এর অর্থ হচ্ছে, যাকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স দেয়া হচ্ছে তিনি কোন অপরাধী নন এবং তার বিরুদ্ধে থানায় কোন অভিযোগও নেই। অনলাইনে এটি চালু হওয়ায় নগরবাসীর সময় বাঁচবে। টেনশন কমবে। অফিসে এসে বসে থাকতে হবে না। আবেদন করার পর সেটি পুলিশের পক্ষ থেকেই যাচাই বাছাই করা হবে। আবেদন গৃহীত হলে তাও জানিয়ে দেয়া হবে, গৃহিত না হলে কেন হয় নি তাও জানিয়ে দেয়া হবে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই।

পুলিশ ভেরিফিকেশন নিয়ে জনমনে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ও জটিলতা দীর্ঘদিনের। অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পাওয়ার সুযোগ সৃষ্টিতে তা দূর হবে স্বাভাবিক ভাবেই। সরকারের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) এর তথ্য মতে, প্রতি বছর বিদেশে যেতে চাওয়া আনুমানিক সাড়ে সাত লাখ নাগরিককে পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের জন্যে পুলিশ কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করতে হয়। আর পুলিশ এটি ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে করার কারণে পুরো প্রক্রিয়াটি অত্যন্ত সময় ও ব্যয়সাপেক্ষ হয়ে দাঁড়ায়। এখন অনলাইনে আবেদনের পর পরবর্তী দাপ্তরিক ধাপসমূহ একটি গোছানো, নির্ধারিত সময় ও নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ায় সম্পন্ন হবে। আবেদনকারী ই-পেমেন্টের মাধ্যমে এই সেবার ফি পরিশোধ করতে পারবেন। এছাড়াও আবেদনের অবস্থা জানার জন্যে এসএমএসে নোটিফিকেশন পাওয়া যাবে। এজন্য অনলাইনে যথাযথভাবে আবেদনপত্র পূরণ করে প্রথম শ্রেণীর গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত পাসপোর্টের তথ্যপাতার স্ক্যানকপি দিতে হবে। এরপর বাংলাদেশ ব্যাংক অথবা সোনালী ব্যাংকের যেকোনো শাখা থেকে (১-২২০১-০০০১-২৬৮১) কোডে করা ৫০০ টাকা মূল্যমানের ট্রেজারি চালান অথবা অনলাইনে ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডে নির্ধারিত সার্ভিস চার্জসহ ফি প্রদান করতে হবে।

আবেদনকারী অনলাইনে তার আবেদনের সর্বশেষ অবস্থা নিয়মিত জানতে পারবেন। পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেটে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার স্বাক্ষর, পুলিশ সুপার/উপ-পুলিশ কমিশনারের প্রতিস্বাক্ষর এবং পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সত্যায়ন হওয়ার পর আবেদনকারী ব্যক্তিগতভাবে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয় অথবা মহানগর পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের ওয়ান স্টপ সার্ভিস কাউন্টার থেকে হাতে হাতে নিতে পারবেন। আবেদনকারী কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে সার্টিফিকেট গ্রহণ করতে চাইলে তা আবেদনের নির্ধারিত জায়গায় উল্লেখ করতে হবে। সে ক্ষেত্রে কুরিয়ার ফি পরিশোধ সাপেক্ষে আবেদনকারী ঘরে বসে সার্টিফিকেট পেতে পারেন।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, এই সার্টিফিকেটের একটি বৈশিষ্ট্য হলো, এতে একটি কিউআর কোড প্রিন্ট করা থাকে। যে কোনো স্মার্টফোন থেকে কিউআর কোড স্ক্যানার এ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে কোডটি স্ক্যান করলে ইস্যুকৃত সার্টিফিকেটের একটি অনলাইন লিংক পাওয়া যাবে। যে কোনো ইন্টারনেট ব্রাউজার ব্যবহার করে লিংকটি ভিজিট করলে ইস্যুকৃত সার্টিফিকেটের একটি অবিকল ডিজিটাল কপি কম্পিউটারে দেখা যাবে। ফলে এখন থেকে বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক ইস্যুকৃত পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট জাল হওয়ার কোনো সম্ভাবনা থাকবে না এবং যে কোন বিদেশি মিশন অনলাইনে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট যাচাই করতে পারবে।

এটুআই সূত্রে জানা গেছে, দেশের যেকোনো স্থান থেকে যে কেউ অনলাইনে এই পুলিশ ক্লিয়ারেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এটুআই প্রোগ্রামের সার্ভিস ইনোভেশন তহবিলের আওতায় বাস্তবায়িত হচ্ছে এই উদ্যোগ। গতকাল সারাদেশে চালুর আগে অনলাইন পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সেবাটি গত ২০ নভেম্বর কুমিল্লা জেলায় এবং গত ১ জানুয়ারি সিলেট মেট্রোপলিটন এলাকায় পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হয়। দুটি স্থানে সফলতা পাওয়ায় পর সবখানে চালু হল। এ পর্যন্ত অনলাইনে সেবা পেতে প্রায় ১৪ হাজারেরও বেশি আবেদন পাওয়া গেছে। তার মধ্যে সাড়ে ৫ হাজার সার্টিফিকেট ইস্যু করা হয়েছে বলে পুলিশ সদর দপ্তর জানিয়েছে।

User Comments

  • আরো