২৫ জানুয়ারি ২০২২ ১০:৪:২৫
logo
logo banner
HeadLine
২৪ জানুয়ারি ২০২২ : ৩৯.৯৫ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ৯৮৯ * ২৩ জানুয়ারি ২০২২ : ৩৮.৬৪ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ১০২৬ * ২৩ জানুয়ারি ২০২২ : ৩১.২৯ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ১০৯০৬, মৃত ১৪ * স্বাধীনতা রক্ষা ও গণতন্ত্র সমুন্নত রাখতে কাজ করার জন্য পুলিশ সদস্যদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান * ২১ জানুয়ারি ২০২২ : ২৮.৪৯ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ১১৪৩৪ জন, মৃত ১২ * আবারও করোনা সংক্রমণ বাড়ায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের ৫ জরুরি নির্দেশনা * ২১ জানুয়ারি ২০২২ : ৩৩.০১ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ১০১৭ জন, মৃত ১ * করোনা সংক্রমণ বাড়ায় আগামী দুই সপ্তাহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী * ২০ জানুয়ারি ২০২২ : ২৬.৩৭ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ১০৮৮৮ জন, মৃত ৪ * বাংলাদেশের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না : প্রধানমন্ত্রী * ১৯ জানুয়ারি ২০২২ : ২৫.১১ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ৯৫০০ জন, মৃত ১২ * ১৯ জানুয়ারি ২০২২ : ৩০.৯৮ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ৯৮৯ জন, মৃত ১ * ১৫ জানুয়ারি ২০২২ : ১৪.৩৫ শতাংশ হারে দেশে নতুন শনাক্ত ৩৪৪৭ জন, মৃত ৭ * ১৫ জানুয়ারি ২০২২ : ১২.২৯ শতাংশ হারে চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ২৩৯ জন * বাড়ছে না ভাড়া, অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলবে বাস *
     13,2022 Thursday at 11:13:46 Share

২৯১০টি প্লটের অনন্যা আবাসিক এলাকা দ্বিতীয় পর্যায় একনেকে অনুমোদন

২৯১০টি প্লটের  অনন্যা আবাসিক এলাকা দ্বিতীয় পর্যায় একনেকে অনুমোদন

‘স্মল বাট স্মার্ট’ উপশহর গড়ে তোলার লক্ষ্যে গৃহীত চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) অনন্যা আবাসিক এলাকা দ্বিতীয় পর্যায় গতকাল একনেকে অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এই আবাসিক এলাকায় ২৯১০টি প্লট তৈরি করে বরাদ্দ দেয়া হবে। প্রায় তিন হাজার কোটি টাকার এই প্রকল্পে আগের সতেরশ প্লট মিলে মোট সাড়ে চার হাজারেরও বেশি প্লট হবে। এই আবাসিক এলাকাটি চট্টগ্রামের সর্ববৃহৎ আবাসিক এলাকা হবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

ইতোমধ্যে ভূমি হুকুম দখলের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আবাসিক প্লটের পাশাপাশি এই প্রকল্পে ১১০টি বাণিজ্যিক প্লটও দেয়া হচ্ছে। মেডিকেল কলেজ, হাসপাতাল, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, খেলার মাঠ, থিম পার্ক, জেনারেল পার্কসহ বিভিন্ন ধরনের অবকাঠামো নির্মাণের জন্যও জায়গা রাখা হচ্ছে। প্রকল্পটিকে নান্দনিক করতে বহুমুখী পরিকল্পনা রয়েছে বলে সিডিএ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের পদস্থ একজন কর্মকর্তা জানান, ১৯৫৯ সালে প্রতিষ্ঠিত সিডিএ গত পঞ্চাশ বছরেরও বেশি সময়ে মোট এগারোটি আবাসিক এলাকা বাস্তবায়িত করেছে। এর মধ্যে কাতালগঞ্জ আবাসিক এলাকায় প্লটের সংখ্যা ৫৮টি, আগ্রাবাদ সিডিএ আবাসিক এলাকার প্লটের সংখ্যা ৩৯১টি, চান্দগাঁও আবাসিক এলাকায় প্লটের সংখ্যা ৭৫৯টি, কর্নেল হাট আবাসিক এলাকায় প্লটের সংখ্যা ১৬৮টি, সলিমপুর সিডিএ আবাসিক এলাকায় প্লটের সংখ্যা ৯০৪টি, কর্ণফুলী আবাসিক প্রকল্পে প্লটের সংখ্যা ৫১৭টি, চন্দ্রিমা আবাসিক এলাকায় প্লটের সংখ্যা ১৮০টি, চান্দগাঁও দ্বিতীয় পর্যায়ের আবাসিক এলাকায় প্লটের সংখ্যা ৮২টি, কল্পলোক আবাসিক এলাকায় প্রথম পর্যায়ে প্লটের সংখ্যা ৪২৩টি, দ্বিতীয় পর্যায়ে ১৩৫৬টি এবং অনন্যা আবাসিক এলাকায় প্লটের সংখ্যা ১৭২৫টি।

তিনি জানান, গত পঞ্চাশ বছরেরও বেশি সময়ে সিডিএ মোট ৬৫৬৩টি প্লট বরাদ্দ দিয়েছে। সিডিএর ইতিহাসে সবচেয়ে বড় প্রকল্পটি বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। অনন্যা আবাসিক এলাকা দ্বিতীয় প্রকল্প নামের এই প্রকল্পটিতে ২৮০০ আবাসিক প্লট এবং ১১০টি বাণিজ্যিক প্লট বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে। তিন হাজার কোটি টাকার প্রকল্পটি গতকাল একনেকের চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়েছে।

প্রকল্পটি বাস্তবায়নে এখন আর কোনো বাধা নেই বলে জানান সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম । তিনি বলেন, চট্টগ্রামের সবচেয়ে গোছানো এবং পরিকল্পিত এই আবাসিক

এলাকাটি একটি ‘স্মল বাট স্মার্ট’ উপশহর হয়ে উঠবে। তিনি বলেন, এখন আমরা ভূমি হুকুম দখল করার ব্যবস্থা নেব। শীঘ্রই প্রকল্পটিতে প্লট বরাদ্দের দরখাস্ত আহ্বান করা হবে।

সিডিএ চেয়ারম্যান বলেন, অনন্যা আবাসিক এলাকার পাশের ৪১৫ একর জমিতে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হবে। একই সাথে অনন্যা আবাসিক এলাকার বঙ্গবন্ধু এভিনিউর বর্তমান রাস্তাটি ৬০ ফুটের পরিবর্তে ১০০ ফুটে উন্নীত করা হবে। বঙ্গবন্ধু এভিনিউ এবং বঙ্গবন্ধু স্কয়ারেরও উন্নয়ন করা হবে।

সিডিএর অপর একজন পদস্থ কর্মকর্তা গতকাল বলেন, সিডিএ চেয়ারম্যান হিসেবে আবদুচ ছালাম দীর্ঘদিন ধরে দায়িত্ব পালন করলেও তিনি কোনো আবাসিক এলাকার প্রকল্প গ্রহণ করেননি। এই প্রথম একটি প্রকল্প হাতে নিলেন। প্রকল্পটির সব দিক নান্দনিক করতে তিনি সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন।

অনন্যা আবাসিক এলাকা দ্বিতীয় প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক এবং সিডিএর নির্বাহী প্রকৌশলী আহমেদ মঈনুদ্দীন  বলেন, আবাসিক এবং বাণিজ্যিক মিলে মোট ২৯১০ প্লট থাকবে। মুলত আবাসিক এলাকা। আবাসিক এলাকার প্রয়োজনেই বাণিজ্যিক প্লটগুলো রাখা হচ্ছে। প্রকল্পটিকে নান্দনিক করতে বহুমুখী পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান তিনি।

User Comments

  • আরো