২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০:৫৮:১৯
logo
logo banner
HeadLine
ষড়যন্ত্রের 'ক' পরিকল্পনা ব্যর্থ 'খ' পরিকল্পনাটি কী হবে? * এখনও বালুতে মাথা গুঁজে রেখেছেন সু চি: অ্যামনেস্টি * আন্তরজাতিক চাপে ভীত নন, রোহিঙ্গাদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলার আগ্রহ সুচির * সামরিক নয়, কূটনৈতিক পথেই রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধান * কমে এসেছে রোহিঙ্গা স্রোত, তৈরী হচ্ছে ১৪ হাজার তাঁবু, * দক্ষিণ আফ্রিকা পৌঁছাল টাইগাররা * আরও ১২ স্কুল ও কলেজ সরকারি হলো * রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বন্য হাতির আক্রমণে নিহত ২ * শরণার্থী আশ্রয় নীতিমালা চেয়ে হাইকোর্টে রিট * ৩০ টাকা দরে ওএমএসের চাল বিক্রি শুরু * অবৈধ চাল মজুদকারীকে গ্রেফতারের নির্দেশ * সংকট নিরসনে সু চির সামনে 'শেষ সুযোগ': জাতিসংঘ * ভারী বৃষ্টি হতে পারে, বন্দরে ৩ নম্বর সতর্কতা * বেড়েই চলেছে চালের বাজার * ১০ জিবি র্যাাম, ২৫৬ জিবি রম, ৩২ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ও ৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে নিয়ে আসছে নকিয়া * রোহিঙ্গা সংকট থেকে দৃষ্টি সরাতেই আকাশসীমা লঙ্ঘনের সামরিক উসকানি * রোহিঙ্গা বিপর্যয় 'দ্রুততম সময়ে সৃষ্ট শরণার্থী সঙ্কট' - জাতিসংঘ * রোহিঙ্গা ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে আশ্রয়, বাড়ীভাড়া, চাকুরী ইত্যাদি না দিতে পুলিশের বিশেষ নির্দেশনা * সন্দ্বীপে নেতা-কর্মিদের উপর হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানালো উপজেলা আওয়ামীলীগ * বিশ্ব ওজোন দিবস আজ * কাল থেকে ১৫ টাকা কেজিতে চাল পাবে স্বল্প আয়ের মানুষ * ছড়িয়ে পড়ছে রোহিঙ্গারা * রোহিঙ্গা নির্যাতনের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে হেফাজতের বিক্ষোভ * মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গ্রামের পর গ্রাম পুড়িয়ে দিচ্ছে সেনাবাহিনী'-অ্যামনেস্টি * শেখ হাসিনা , মাদার অব হিউম্যানিটি * রোহিঙ্গা ইস্যুতে কী বলছে আনান কমিশন! * জাতিসংঘের ৭২তম অধিবেশনে যোগ দিতে আজ দুপুরে ঢাকা ছাড়ছেন প্রধানমন্ত্রী * বিকাশের ৩ হাজার এজেন্টের বিরুদ্ধে তদন্ত হচ্ছে * ২৫ অগাস্টের পর রাখাইনের ৪০ শতাংশ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে * প্রকৃতি গবেষক দ্বিজেন শর্মা আর নেই *
     24,2017 Thursday at 13:07:31 Share

কোরবানীর জন্য সুস্থ ও ভালো পশু চেনার উপায়

কোরবানীর জন্য সুস্থ ও ভালো পশু চেনার উপায়

আগামী ০২ সেপ্টেম্বার পবিত্র ঈদুল আযহা।  এরই মধ্যে  জমতে শুরু করেছে কোরবানির পশুর হাট। হাটগুলো ভরে উঠবে নানা আকারের গরু-ছাগলে। এতো পশুর মধ্য থেকে নিজের মনের মতো একটি ভালো পশু কেনা সহজ নয়। কৃত্রিমভাবে স্টেরয়েড খাইয়ে মোটাতাজা করা পশুর বিশেষ করে গরুর ভিড়ে সত্যিকার স্বাস্থ্যবান ও সুস্থ্ গরু চেনা একটু কঠিন বটে। তবে কিছু বিষয় খেয়াল করলে ভালো গরু চিনে নেওয়া সম্ভব।

স্টেরয়েড দিয়ে মোটা তাজা করা গরু স্বাস্থ্যের জন্য কেন ক্ষতিকর বিধায়  বিশেষজ্ঞরা স্টেরয়েডে মোটাতাজা করা গরু না খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। কারণ এ ধরণের গরুর মাংস খেলে হতে পারে নানান জটিল রোগ। ষ্টেরয়েড দিয়ে মোটা বানানো গরুর মাংসে থাকে অতিরিক্ত ষ্টেরয়েডযুক্ত পানি। যা স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি করে। কোরবানির ২০ থেকে ২৫ দিন আগে অসাধু ব্যবসায়ীরা প্রতিটি গরুকে এক সাথে ২০ থেকে ৩০টি পর্যন্ত ট্যাবলেট খাওয়ান। ইনজেকশনও দেওয়া শুরু করেন। এতে গরু অতি দ্রুত মোটা হয়ে ওঠে। অতিরিক্ত হরমোন খাওয়ানো গরুর মাংস থেকে আগুনেও হরমোনমুক্ত হয় না।

এ বিষয়ে ঢাকা সিটি করপোরেশনের পশু চিকিৎসক ডা. আজমত আলী বলেন, অতিমাত্রায় হরমোন ব্যবহার করলে গরুর শরীরে ব্যাপক পানি জমে। এতে গরু মোটাতাজা দেখায়। কিন্তু গরু র কিডনি, লিভার ও পাকস্থলি নষ্ট হয়ে যায়। এই গরুর মাংস খেলে মানবদেহে নানা ধরনের শারীরিক জটিলতা দেখা দিতে পারে।

 নিচের বিষয়গুলোর মাধ্যমে ভালো গরু চিনে নেওয়া সম্ভব:
 ১। স্টেরয়েড ট্যাবলেট খাওয়ানো বা ইনজেকশন দেয়া গরু হবে খুব শান্ত। ঠিকমতো চলাফেরা করতে পারবে না। পশুর ঊরুতে অনেক মাংস মনে হবে।
২। অতিরিক্ত হরমোনের কারণে পুরো শরীরে পানি জমে মোটা দেখাবে। আঙ্গুল দিয়ে গরুর শরীরে চাপ দিলে সেখানে দেবে গিয়ে গর্ত হয়ে থাকবে।
৩। গরুর মুখের সামনে খাবার ধরলে যদি নিজ থেকে জিব দিয়ে খাবার টেনে নিয়ে খেতে থাকে তবে বোঝা যাবে গরুটি সুস্থ। যদি অসুস্থ হয়, তবে সে খাবার খেতে চায় না।
৪। সুস্থ গরু জাবর কাটে বিধায় নাকের উপরটা ভেজা ভেজা থাকে।
৫। সুস্থ গরুর পিঠের কুঁজ মোটা ও টান টান হয়।
৬।  বিশেষ করে যে গরুর পা ও মুখ ফোলা, শরীর থলথল করবে, অধিকাংশ সময় গরু ঝিমাবে, সহজে নড়াচড়া করবে না। এসব গরু অসুস্থতার কারণে সবসময় নিরব থাকে। ঠিকমতো চলাফেরা করতে পারে না। খাবারও খেতে চায় না।


কোরবানির উপযুক্ত পশু:
১। কোরবানির জন্য দুই বছরের কম বয়সের গরু বা মহিষ এবং ৬ মাসের কম বয়সের ছাগল বা ভেড়া কোনভাবেই উপযুক্ত নয়।
 ২। শিং ভাঙ্গা আছে কিনা, লেজ, মুখ, দাঁত, খুর এসব কিছুই ভালমত পরীক্ষা করে দেখুন। পশু কেনার আগে এর শরীরের কোথাও ক্ষত চিহ্ন আছে কিনা তা ভালভাবে দেখে নিতে হবে।


৩। গাভী না কেনাই ভালো। গাভী কিনতে হলে কেনার আগে নিশ্চিত হয়ে নিতে চেষ্টা করুন গাভীটি গর্ভবতী কিনা। গর্ভবতী গরু কিন্তু কোরবানি দেয়া যায় না।

পরামর্শ:
১। দিনের আলো থাকত থাকতেই গরু কিনে ফেলুন, কারণ রাতের বেলায় অনেক সময় রোগাক্রান্ত গরু দেখে বুঝতে অসুবিধা হতে পারে।
২। মোটা গরু মানেই কিন্তু সুস্থ গরু নয়। মোটা গরুতে চর্বি অনেক বেশি হয়, যা খাওয়ার পর মানুষের স্বাস্থ্যের ঝুঁকি অনেক বেড়ে যায়। আর এ ধরণের অস্বাভাবিক মোটা গরু কিন্তু বিভিন্ন ওষুধ প্রয়োগ করেও মোটাতাজা করা হতে পারে। তাই সাবধান থাকুন।
৩। দেশি গরু কিনতে চেষ্টা করুন। কারণ সীমান্ত পার হয়ে আসা গরুগুলো অনেক দূর থেকে আসে বলে ক্লান্ত হয়, আর অনেক সময় ছোট-খাট আঘাতপ্রাপ্তও হয়। আর দুর্বল গরু সুস্থ নাকি অসুস্থ সেটা বোঝা বেশ কষ্টকর।
৪। সঠিক এবং নির্দিষ্ট জায়গায় গরু জবাই করুন। চামড়া ভালভাবে ছাড়িয়ে নিন যাতে নস্ট বা কেটে না যায়।  রক্ত, ছোট বর্জ্য ইত্যাদি নালা নর্দমায় না ফেলে মাটিতে পুতে ফেলুন। নাড়ীভুঁড়ি নির্দিষ্ট স্থানে রাখুন যাতে পরিছন্নকর্মিগন সহজে তুলে নিয়ে যেতে পারে। সাধ্যমত গরীব অসহায়দের মাঝে কোরবানীর মাংস বিরতণ করুন।

কোরবানী একটি ইবাদত।  সকলের কোরবানী কবুল হউক।

User Comments

  • ধর্ম ও নৈতিকতা