২৩ নভেম্বর ২০১৭ ১৩:৩৩:৩২
logo
logo banner
HeadLine
যে গ্রামে থাকলেই মিলবে ৫৯ লাখ টাকা! * সৎ পাঁচ বিশ্ব নেতার তালিকায় শেখ হাসিনা তৃতীয় * জরিপের ভিত্তিতে জনপ্রিয় ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়া হবে, নিজেদের মধ্যে কোন্দল-কাঁদা ছোড়াছোড়ি বন্ধ করুন -শেখ হাসিনা * 'দিনে ১২ ঘণ্টা না ১৪ ঘণ্টা কাজ করি, এমনও দিন যায় তিন ঘণ্টার বেশি ঘুমাতে পারি না': প্রধানমন্ত্রী * সাভার আর সিঙ্গাইরে মাটির নিচে পানির 'খনি আবিষ্কার * নবম ওয়েজবোর্ডের দাবিতে ২৭ নভেম্বর সাংবাদিক সমাবেশ * জামাত-বিএনপি থেকে আসা কর্মীরাই এমপি'দের আস্থাভাজন, প্রধানমন্ত্রীর হুঁশিয়ারি * সাড়ে দশ কোটি ছাড়ালো ভোটার সংখ্যা, নতুন ৩৩ লাখ * রোহিঙ্গা সমস্যা : আশু করণীয় * ব্লাড প্রেশার, যেসব বিষয় জানা দরকার * সিনহার পদত্যাগ নিয়ে 'বানোয়াট' প্রতিবেদন প্রকাশ করায় ত্রিশালে গ্রেপ্তার ২ * 'ঝুঁকি' রোধে সন্দ্বীপে জেলা পরিষদের জেটি নির্মাণের উদ্যোগ * সশস্ত্র বাহিনীর শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন * সশস্ত্র বাহিনী দিবস আজ * চীনের নয়া সিল্ক রোড * আয়ের ধারায় ফিরেছে রেল, এক বছরে আয় বেড়েছে ৪'শ কোটি টাকা * সফল ভাবে প্রতিস্থাপিত হল মানুষের মাথা * চিকিৎসা ব্যয় পরিশোধে ব্যর্থতার জন্য লাশ আটকে রাখা যাবে না-হাইকোর্ট * বাড়ছে না সরকারি চাকরিতে যোগদানের বয়সসীমা * সুজনের কোচ হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি: পাপন * সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নে সর্বাত্মক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী * রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে চীনের তিন প্রস্তাব * দীপিকার মাথার দাম ১০ কোটি রুপি, ঘোষনা দিলেন বিজেপি নেতা * ৭ মার্চের ভাষণের মঞ্চ কেন পুনর্নির্মাণ নয় * বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন যথাযথভাবে পালনের নির্দেশ সুপ্রিম * ভারতে প্রকাশ্যে মলমূত্র ত্যাগ করে ৭০ কোটি মানুষ, বাংলাদেশে 'প্রায় নেই' * বন্দরে মাদারীপুরের মানুষ চাকরি পেয়েছে 'মেধা দিয়ে', ৯০ জন নয় চাকুরী হয়েছে ৬/৭ জনের-শাজাহান খাঁন * দেশে ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ কিডনি রোগে আক্রান্ত * ৫৭ ছক্কায় ৪৯০ রানের অবিশ্বাস্য রেকর্ড ! * 'রোহিঙ্গাদের ওপর নৃশংসতা যুদ্ধাপরাধ ও মানবাধিকারের মৌলিক লঙ্ঘন' *
     12,2017 Tuesday at 10:08:06 Share

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে পাশে থাকছে চীন ও ভারত

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে পাশে থাকছে চীন ও ভারত

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বাংলাদেশের পাশে থাকবে চীন ও ভারত। রাখাইনে গণহত্যা দ্রুত বন্ধ ও সংকট সমাধানে কোফি আনান কমিশন বাস্তবায়নে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। সোমবার রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় বিদেশী কূটনীতিকদের ব্রিফিং এই সহযোগিতা চাওয়া হয়। এদিকে আগামীকাল বুধবার রোহিঙ্গা পরিস্থিতি দেখতে কক্সবাজার যাচ্ছেন বিদেশী কূটনীতিকরা।


রোহিঙ্গা পরিস্থিতি তুলে ধরতে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় মঙ্গলবার দ্বিতীয় দফায় দক্ষিণ এশিয়া ও আসিয়ান দেশগুলোর রাষ্ট্রদূতদের নিয়ে ব্রিফিং করা হয়। পররাষ্ট্র মন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী তাদের ব্রিফিং করেন। এসময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক উপস্থিত ছিলেন।


ব্রিফিং শেষে সচিব এম শহীদুল হক সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, চীন ও ভারত আমাদের ভাতৃপ্রতিম দেশ। এই দুঃখকালীন, কষ্টকালীন সময়েও তারা আমাদের পাশে থাকবে, আগে যেভাবে থেকেছে।


বিদেশী কূটনীতিকদের ব্রিফিংয়ের বিষয়ে জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব জানান, মিয়ানমারের রাখাইন থেকে সাত লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা নাগরিক বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন। এরপর থেকে যে মানবিক বিপর্যয়ের উদ্ভব হয়েছে, সে বিষয়ে তাদের কাছে বিস্তারিত তুলে ধরেছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী। আমরা রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কোফি আনান কমিশনের পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন চেয়েছি। আমরা তাদেরকে পূর্ণাঙ্গভাবে এই কমিশনের প্রতিবেদন দ্রুত ও শর্তহীন বাস্তবায়নে সহযোগিতা চেয়েছি।


এক প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, বিদেশী কূটনীতিকদের আমরা বলেছি, ওখানে যে কনফ্লিক্ট হচ্ছে, রোহিঙ্গাদের ওপর অত্যাচার চলছে, এটা দ্রুত বন্ধ করতে হবে। যেন রোহিঙ্গাদের আসা বন্ধ হয়। কোফি আনান কমিশনে যেটা আছে, সে অনুযায়ী রোহিঙ্গাদের ভেরিকেশন করে তাদের জাতীয় পরিচিয় নিশ্চিত করার কথাও আমরা বলেছি।


বিদেশী রাষ্ট্রদূতদের পক্ষ থেকে কি ধরণের সাড়া পাওয়া গেছে, জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব বলেন, এখানে যারা এসেছেন, তারা সকলেই উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। সকলেই বাংলাদেশের পাশে থাকবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। এছাড়া রোহিঙ্গারা যারা এখানে আছেন, তাদের সহযোগিতা করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।


মিয়ানমারের পক্ষ থেকে কি ধরণের সাড়া পাওয়া গেছে জানতে চাইলে, পররাষ্ট্র সচিব বলেন, মিয়ানমার থেকে এখনো কোনো সাড়া মেলেনি।


ব্রিফিংয়ে ঢাকার মিয়ানমার মিশনের কোনো প্রতিনিধি ছিলেন কি-না জানতে চাইলে পররাষ্ট্র সচিব জানান, ঢাকার মিয়ানমার মিশনকে ব্রিফিংয়ে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। সে কারণে দেশটির কোনো প্রতিনিধি ছিলেন না।


কয়েক দশক ধরে বাংলাদেশ ৪ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গার ভার বহন করে চলেছে সম্প্রতি আরও তিন লাখের মতো রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আগের রোহিঙ্গাদের ফেরত নিতে আহ্বান জানিয়ে আসা হলেও তাতে কোনো সাড়া দেয়নি মিয়ানমার।


নতুন করে রোহিঙ্গা স্রোত আসার পর বাংলাদেশ মিয়ানমারের মধ্যে রোহিঙ্গাদের জন্য একটি ‘সেফ জোন’ প্রতিষ্ঠার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি সন্ত্রাস দমনে সীমান্তে যৌথ অভিযান চালাতেও মিয়ানমারকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।


এদিকে বাংলাদেশে আসা রোহঙ্গাদের ত্রাণ সহায়তার জন্য বেশ কয়েকটি দেশ ত্রাণসামগ্রী পাঠাচ্ছে। এসব দেশের মধ্যে রয়েছে ইন্দোনেশিয়া, মরক্কো, আজারবাইজান, তুরস্ক, মালয়েশিয়া ইত্যাদি।

User Comments

  • আরো