২৫ এপ্রিল ২০১৮ ৬:৫১:১০
logo
logo banner
HeadLine
দ্বিতীয় মেয়াদে শপথ নিলেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ * গ্লোবাল উইমেন লিডারশিপ খেতাব পাচ্ছেন শেখ হাসিনা * টরেন্টোয় পথচারীদের ওপর গাড়ি চালিয়ে ১০ জনকে হত্যা, সন্দেহভাজন আটক * একুশে পদকপ্রাপ্ত কবি বেলাল চৌধুরীর আর নেই * ২৬ এপ্রিল অস্ট্রেলিয়া যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী * সন্দ্বীপে পৃথক অভিযানে মাদক ব্যবসায়ীসহ গ্রেফতার ২ * দেশে ফিরলেন প্রধাণমন্ত্রী * সৌদি আরব ও যুক্তরাজ্যে ৮ দিনের সরকারি সফর শেষে আজ সকালে দেশে ফিরছেন প্রধানমন্ত্রী * বিএনপি-জামায়াতের অপপ্রচারের জবাব দিতে হবে : প্রধানমন্ত্রী * দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী সেঁজুতির চিঠির জবাব দিলেন প্রধানমন্ত্রী * আজ বিশ্ব ধরিত্রী দিবস * ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় ক্যাম্পাসের স্বপ্ন পূরণ হতে চলেছে * রাজাকারের সন্তানদের চাকরিতে অযোগ্য ঘোষণার দাবি * শিশু ধর্ষণে মৃত্যুদণ্ডের আইন করছে ভারত * সন্দ্বীপে জামাত নেতাসহ ২ পলাতক আসামী গ্রেফতার * হালদায় ডিম ছেড়েছে মা মাছ, চলছে ডিম আহরণ ও রেণু ফোটানোর প্রক্রিয়া * হাজার হাজার কোটি টাকা রেমিটেন্স হিসেবে বিদেশী কর্মীরা নিয়ে যাচ্ছে * রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিন , রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর গণহারে মানবাধিকার লঙ্ঘনকারী অপরাধীদের বিচার করতে হবে -কমনওয়েলথ * আসছে মাসে এলএনজি পাবেন গ্রাহকরা * কোটা নিয়ে কথকতা! * সমৃদ্ধ বাংলাদেশের রূপকার শেখ হাসিনা * খুলেছে শ্রমবাজার, কর্মী নিয়োগে শীঘ্রই চাহিদাপত্র পাঠাবে আমিরাত * অতিক্রান্ত নববর্ষ ॥ সামনে সতর্কতা * সাধারণ ছাত্রদের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে * সৌদি আরবে অগ্নিকাণ্ডে ৬ বাংলাদেশি নিহত * এশীয় অঞ্চলের ভবিষ্যতের মূল চাবিকাঠি হচ্ছে শান্তিপূর্ণ ও স্থিতিশীলতা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা * ৮-৪-৪-৪-৪-৮ * আমাদের উন্নয়ন ও স্বাধীনতার শত্রু-মিত্র * ঋণ জালিয়াতির মামলায় ওরিয়েন্টাল ব্যাংকের পাঁচ কর্মকর্তার ৬৮ বছরের কারাদণ্ড * মুজিবনগর দিবসের স্মৃতিকথা *
     27,2017 Wednesday at 19:53:03 Share

ভার্চুয়াল মুদ্রা বিটকয়েন, লেনদেন না করতে বাংলাদেশ ব্যাংকের সতর্কতা জারি

ভার্চুয়াল মুদ্রা বিটকয়েন, লেনদেন না করতে বাংলাদেশ ব্যাংকের সতর্কতা জারি

বিটকয়েনের ব্যবহার নিয়ে অর্থনীতিবিদ ও গবেষকদের তীব্র শঙ্কার মধ্যেই আজ বুধবার দেশে এর লেনদেন অবৈধ ঘোষণা করে এর কেনাবেচা নিয়ে সতর্ক করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। গবেষক ও বিশ্লেষকরা বলছেন, বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশে বিট কয়েন বৈধ করাটা যত না লাভজনক তারচেয়েও শঙ্কার। নজরদারি না থাকলে মাদক, জুয়া, অস্ত্র কেনা কিংবা জঙ্গি অর্থায়নের মতো কার্যকলাপেও এর ব্যবহার বিপজ্জনক করে তুলবে নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে। এদিকে, কী কারণে বিটকয়েন নিয়ে এত আশঙ্কা আর এর কাজই বা কী তা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে রয়েছে নানা কৌতূহল।


বিটকয়েন আসলে কী? সাধারণ মানুষের কাছে অস্পষ্ট হলেও লেনদেনের ক্ষেত্রে ক্রমেই বাড়ছে এর ব্যবহার। প্রকৃতপক্ষে বিটকয়েন হচ্ছে একটি ভার্চুয়াল সাংকেতিক মুদ্রা। এটি লেনদেন হয় ওপেন সোর্স ক্রিপ্টোগ্রাফিক প্রোটোকলের মাধ্যমে। এর লেনদেনের জন্য কোনও আর্থিক প্রতিষ্ঠান কিংবা ব্যাংকের প্রয়োজন হয় না। যার ফলে একে নিয়ন্ত্রণ করার কোনও সংস্থাও পৃথিবীতে নেই। এটিকে যেমন অনেকেই সুবিধা বলে বিবেচনা করে থাকেন, তেমনই এটিই এই মুদ্রা ব্যবস্থার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় সংশয়।
ইন্টারনেট ঘেঁটে জানা গেছে, বিটকয়েনের চাহিদা এবং মূল্য লাগামহীনভাবে বাড়ছে। ২০১৬ সালের মার্চ মাসে ডলারের বিপরীতে ১টি কয়েনের বিনিময় মূল্য ৪১৯.৭৫ ডলার থাকলেও এ সপ্তাহে এর বিনিময় মূল্য ছিল ১৪৩১৭.৮৬ ডলার। প্রায় প্রতিদিনই এর দাম বাড়ছে। দেড় বছরে দাম বেড়েছে প্রায় চারগুণ। বাংলাদেশি টাকায় একটি বিটকয়েনের দাম এখন প্রায় ১২ লাখ টাকা। অস্বাভাবিক হারে এই বিনিময় মূল্য বাড়ার কোনও কারণ জানা নেই খোদ ব্যবহারকারীদেরও। তারপরও একটি গোষ্ঠী দিন দিন ঝুঁকছে এই ভার্চুয়াল মুদ্রা বিনিময়ের পেছনে।
বিশ্লেষকরা বলছেন, এই মুদ্রা ব্যবস্থার সবচেয়ে খারাপ দিক হলো পরিচয় গোপন রেখে লেনদেন করার সুবিধা। এক জায়গা থেকে বিটকয়েনের মাধ্যমে হিসাব কোথায় যাচ্ছে এবং কার কাছে যাচ্ছে সেটা তদারকি কিংবা সন্ধান করার কোনও সুযোগ নেই। তবে ব্যবহারকারীর টাকা হারিয়েও যায় না। বিট কয়েনে লেনদেন করে নগদ উত্তোলনের জন্য এটিএম বুথও রয়েছে।
বিটকয়েন নিয়ে এখনই আরও গবেষণা ও আলোচনা শুরু করা দরকার বলে মনে করেন সরকারি প্রতিষ্ঠান বিআইডিএসের রিসার্চ ফেলো এবং অর্থনীতিবিদ ড. নাজনীন আহমেদ। তিনি বলেন, সত্যি বলতে কী বিটকয়েন সম্পর্কে ধারণা অনেকেরই নেই বললেই চলে। ক্রিপ্টোকারেন্সির বিষয়টি জটিল। আমরা যারা অর্থনীতি বিষয়ে কাজ করি তাদেরও এ বিষয়ে ধারণা খুব অল্প। এমনকি ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে অন্য দেশের পলিসিগুলো কী তাও সঠিক আমাদের জানা নেই।
তিনি মনে করেন, বিট কয়েনকে বৈধ করা হলে নিজেদেরই ক্ষতি হবে বেশি। কারণ রেমিটেন্সের যে বিশাল অংকটা কেন্দ্রীয় ব্যাংক হয়ে আসে তা হাতছাড়া হয়ে যাবে।
অন্যদিকে,সাইবার নিরাপত্তা বিশ্লেষক এবং তথ্য প্রযুক্তিবিদ তানভির হাসান জোহা মনে করেন,বাংলাদেশে বিট কয়েন নিয়ে উৎকণ্ঠা হওয়ার কিছু এই মুহূর্তে নেই। কারণ,এই মুদ্রা নিয়ন্ত্রণ করার কোনও প্রতিষ্ঠান নেই। এটার দাম এক সময় পড়ে যাবে। তবে ডিপ ওয়েবে আর ডার্ক ওয়েবে অনেক কিছু হয় উল্লেখ করে তিনিও বলেন, জঙ্গি অর্থায়ন থেকে শুরু করে, মাদক ব্যবসা, অস্ত্র কেনা বেচা সবকিছুই হয়। জঙ্গি অর্থায়নের মধ্যে কিছু ভাগ আছে যেমন আন্ডারগ্রাউন্ডে বিট কয়েন দিয়ে লেনদেন হতে পারে। ধর্মভিত্তিক জঙ্গিগোষ্ঠীর যে ফান্ডিং হয় মধ্যপ্রাচ্য থেকে তা সম্পূর্ণ মোবাইল ব্যাংকিং এবং ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন মানি ট্রান্সফার নির্ভর। তবে বিট কয়েন নজরদারি প্রয়োজন বলে তিনি মনে করেন। শুধু বাংলাদেশে নয় আন্তর্জাতিকভাবে এটা পর্যবেক্ষণ করা জরুরি। এরই মধ্যে আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রায় সবগুলোই এটি নিয়ে কাজ করছেন। ইতিমধ্যে একটা নীতিমালা প্রণয়নের কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে। তবে এটি কার্যকর করাটাই চ্যালেঞ্জ।

User Comments

  • বিজ্ঞান ও তথ্য প্রযুক্তি