১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ৪:৭:২১
logo
logo banner
HeadLine
দ্রুতগতিতে চলছে ১০ মেগা প্রকল্প ও ১০০ অর্থনৈতিক অঞ্চলের নির্মাণকাজ * ভবিষ্যতে তরুণদের সুযোগ করে দিতে চাই - শেখ হাসিনা * একদিন আগেই শুরু হল বিশ্ব এজতেমা * ছয় দিনের সফরে প্রধানমন্ত্রী আজ জার্মানি যাচ্ছেন * ২৮ দিনে জমির নামজারি , সর্বোচ্চ ৫৩ দিনে নক্সা অনুমোদন, ভবন নির্মাণে বীমা বাধ্যতামুলক * ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য উন্নত দেশ গড়তে চাই - প্রধানমন্ত্রী * ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবি গ্রামবাসী সংঘর্ষ, নিহত চার * কর্ণফুলী টানেল : চট্টগ্রাম হবে ওয়ান সিটি টু টাউন * ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচন * 'জয় বাংলা' মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান, বীর বাঙালীর স্লোগান * সব হজযাত্রায় খরচ বেড়েছে * ডাকসু'র তফসিল আজ * অল্প জমি ও মাটি ছাড়া সবজি, ফুল, ফল উৎপাদনের প্রযুক্তিকে চাষী পর্যায়ে নিয়ে যান - কৃষিমন্ত্রী * আরও ১২২ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর নাম ঘোষণা * রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ বাসস্থান চায় ঢাকা * হিন্দুকুশের বরফ দ্রুত গলছে : ভেসে যাবে দশ নদীর অববাহিকা , বিপন্ন হবে ২শ' কোটি লোক * উপজেলা নির্বাচনে ৮৭ চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম ঘোষণা করল আওয়ামীলীগ, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীতা থাকবে উন্মুক্ত * জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের ঘোষনা * শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে আজ * দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার বাস্তবে রূপ দিতে হবে * সব ধরনের কোচিং বাণিজ্য বন্ধে সরকারের নীতিমালা বৈধ: হাইকোর্ট * সন্দ্বীপ-চট্টগ্রাম ব্রিজ নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাই ও সন্দ্বীপে একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের আহবান জানালেন প্রধানমন্ত্রী * ২১ গুণীজনের ২১শে পদক লাভ * দুদকের ৩৩ মামলায় ৩৮৪ বছর কারাদণ্ড হয়েছিল নির্দোষ জাহালমের! * প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া হবে - প্রধানমন্ত্রী * সব ধরনের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করার তাগিদ দিলেন প্রধানমন্ত্রী * এবারের বিশ্ব ইজতেমা ৪ দিনে অনুষ্ঠিত হবে: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী * উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু * উপজেলা নির্বাচনের প্রথম দফা তফসিল আজ * আসছে ৫ লাখ কোটির বাজেট : নির্বাচনী ইশতেহার হচ্ছে মূল ভিত্তি , উদ্দেশ্য দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থান, সামাজিক সুরক্ষা এবং বিনিয়োগে আকৃষ্ট করা *
     01,2018 Thursday at 09:36:29 Share

ডিভি লটারি বন্ধ করে অভিবাসন নীতি ঘোষণা ট্রাম্পের

ডিভি লটারি বন্ধ করে অভিবাসন নীতি ঘোষণা ট্রাম্পের

মুহাম্মাদ মাসুম হাসান: মেধার ভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্ব দেয়ার ওপর গুরুত্ব দিলেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বুধবার (৩০ জানুয়ারি) ক্যাপিটল হিলে নিজের প্রথম স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন বা বাৎসরিক ভাষণে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র নীতি, কর্মসংস্থানসহ বিভিন্ন বিষয়ের সঙ্গে অভিবাসী ইস্যুতে নিজের পরিকল্পনার কথাও জানান তিনি। প্রায় ৮০ মিনিটের ঐ ভাষণে মার্কিনিদের স্বার্থ রক্ষায় সবাইকে একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। টেলিভিশনের পর্দায় তার এই ভাষণ দেখেন প্রায় ৪ কোটি মানুষ। ট্রাম্পের ভাষণের বড় অংশ জুড়েই ছিলো অভিবাসী ইস্যু। এ সময়, অভিবাসীদের নাগরিকত্ব দেয়া, অবৈধদের বৈধ করা ও ভিসা লটারি বন্ধ সহ বেশ কয়েকটি বিষয়ে ৪টি ধাপে নিজের পরিকল্পনার কথা প্রকাশ করেন ট্রাম্প।


প্রথম ধাপ:
যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত প্রায় ১৮ লাখ ড্রিমার্স বা অবৈধ অভিবাসী সন্তানদের নাগরিকত্ব দেয়ার বিষয়ে আগের কথাই বহাল রাখেন তিনি। নতুন ঘোষিত পরিকল্পনায় শিক্ষা ও প্রয়োজনীয় কর্মসংস্থান ছাড়াও নৈতিক চরিত্রের ওপর ভিত্তি করে এসব অভিবাসীকে নাগরিকত্ব দেয়ার কথা জানান মার্কিন প্রেসিডেন্ট।
দ্বিতীয় ধাপ:
অপরাধ ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িতদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ ঠেকাতে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় সীমান্ত বন্ধের প্রস্তাব করেন ট্রাম্প। মেক্সিকো সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণের বিষয়ে নিজের আগের সিদ্ধান্তই বহাল রাখার পক্ষে মত দেন তিনি।


তৃতীয় ধাপ:
মেধা, দক্ষতা ছাড়াই যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ ও গ্রিনকার্ড পাওয়া ঠেকাতে ভিসা লটারি বন্ধের ঘোষণা দেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ কর্মসূচির মাধ্যমে অদক্ষ অভিবাসীদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ বন্ধ করে মেধার ভিত্তিতে নাগরিকত্ব দেয়ার ওপর জোর দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। বাংলাদেশ, ব্রাজিল, কানাডা, চীন, কলম্বিয়া, ডোমিনিক প্রজাতন্ত্র, এল সালভাদর, ভারত, হাইতিসহ ১৮টি দেশ বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ডাইভারসিটি ভিসা কর্মসূচির আওতার বাইরে আছে। এ কারণে লক্ষাধিক প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিনকার্ড পাচ্ছে না।
চতুর্থ ধাপ:
পরিবারভিত্তিক ধারবাহিক অভিবাসন বন্ধ করে একক পরিবার পদ্ধতি বজায় রাখার কথা বলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। গ্রিনকার্ডধারী কর্তৃক শুধুমাত্র স্বামী বা স্ত্রী ও সংখ্যালঘু শিশু ছাড়া অন্যদের স্পন্সরের বিষয়টি বাতিলের কথাও চিন্তা করছেন তিনি। শুধুমাত্র অর্থনীতি নয়, নিরাপত্তা ও ভবিষ্যতের জন্য এ পদ্ধতির সংস্কার খুবই জরুরি বলে মত দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সম্প্রতি নিউইয়র্কে দুটি সন্ত্রাসী হামলার বিষয় টেনে ট্রাম্প বলেন, চেইন মাইগ্রেশন বা ধারবাহিক অভিবাসন ব্যবস্থা ও ভিসা লটারির জন্যই এ ধরণের হামলার শিকার হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।
ভাষণে, সব আমেরিকানকে ড্রিমার্স উল্লেখ করে তাদের নিরাপত্তা, পরিবার, সম্প্রদায় ও স্বপ্ন দেখার অধিকার রক্ষায় আইনপ্রণেতাদের প্রতি আহ্বান জানান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বাৎসরিক গুরুত্বপূর্ণ এ ভাষণে অভিবাসী ছাড়াও পররাষ্ট্র নীতি নিয়েও কথা বলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। উত্তর কোরিয়া ইস্যুতে হতাশা জানিয়ে পরমাণু ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা বন্ধ করতে আবারও পিয়ংইয়ংকে হুঁশিয়ার করেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের ভূ-খণ্ড রক্ষায় কিম জং উনের সরকারের ওপর সর্বোচ্চ চাপ অব্যাহত রাখতে কংগ্রেসের প্রতি আহ্বান জানান ট্রাম্প।


মধ্যপ্রাচ্য ইস্যুতে ট্রাম্প বলেন, সিরিয়া ও ইরাকে আইএস জঙ্গিদের আমরা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এনেছি। তাদের নিয়ন্ত্রণে থাকা এলাকাগুলো উদ্ধারের দাবি করে ভবিষ্যতেও জঙ্গিবিরোধী অভিযান অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এসব স্থানে নিরাপত্তা ব্যবস্থা এখনো স্থিতিশীল হয়নি জানিয়ে সেনা প্রত্যাহারের সুর্নির্দিষ্ট কোন সময়সীমার গুরুত্ব নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি।
কিউবায় অবস্থিত আলোচিত গুয়ান্তানামো বে কারাগার বন্ধের সিদ্ধান্ত থেকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সরে আসার ঘোষণাও দিয়েছেন তার স্টেট অব দ্য ইউনিয়নে। সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বিতর্কিত এ কারাগার বন্ধের ঘোষণা দিলেও সেখান থেকে সরে আসলেন ট্রাম্প।
যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো উল্লেখ করে তার হাতে ২৪ লাখ মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। তার সরকারের হাতে শক্তিশালী, নিরাপদ ও গর্ব করার মতো যুক্তরাষ্ট্র নির্মিত হচ্ছে বলে মন্তব্য করেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর্থিক মন্দা পুরোপুরি কাটিয়ে উঠে তার সরকার নতুন করে ঘুরে দাড়িয়েছে বলে জানান ডোনাল্ড ট্রাম্প। পুরনো সব রাস্তাঘাট সংস্কারের পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের অবকাঠামো নতুন করে সাজানোর কথাও বলেন তিনি। তবে এ নিয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি ট্রাম্প। খবরঃ weeklysandwip.com

User Comments

  • আন্তর্জাতিক