১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ৩:৪৭:৪৮
logo
logo banner
HeadLine
দ্রুতগতিতে চলছে ১০ মেগা প্রকল্প ও ১০০ অর্থনৈতিক অঞ্চলের নির্মাণকাজ * ভবিষ্যতে তরুণদের সুযোগ করে দিতে চাই - শেখ হাসিনা * একদিন আগেই শুরু হল বিশ্ব এজতেমা * ছয় দিনের সফরে প্রধানমন্ত্রী আজ জার্মানি যাচ্ছেন * ২৮ দিনে জমির নামজারি , সর্বোচ্চ ৫৩ দিনে নক্সা অনুমোদন, ভবন নির্মাণে বীমা বাধ্যতামুলক * ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য উন্নত দেশ গড়তে চাই - প্রধানমন্ত্রী * ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবি গ্রামবাসী সংঘর্ষ, নিহত চার * কর্ণফুলী টানেল : চট্টগ্রাম হবে ওয়ান সিটি টু টাউন * ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচন * 'জয় বাংলা' মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান, বীর বাঙালীর স্লোগান * সব হজযাত্রায় খরচ বেড়েছে * ডাকসু'র তফসিল আজ * অল্প জমি ও মাটি ছাড়া সবজি, ফুল, ফল উৎপাদনের প্রযুক্তিকে চাষী পর্যায়ে নিয়ে যান - কৃষিমন্ত্রী * আরও ১২২ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর নাম ঘোষণা * রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ বাসস্থান চায় ঢাকা * হিন্দুকুশের বরফ দ্রুত গলছে : ভেসে যাবে দশ নদীর অববাহিকা , বিপন্ন হবে ২শ' কোটি লোক * উপজেলা নির্বাচনে ৮৭ চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম ঘোষণা করল আওয়ামীলীগ, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীতা থাকবে উন্মুক্ত * জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের ঘোষনা * শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে আজ * দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার বাস্তবে রূপ দিতে হবে * সব ধরনের কোচিং বাণিজ্য বন্ধে সরকারের নীতিমালা বৈধ: হাইকোর্ট * সন্দ্বীপ-চট্টগ্রাম ব্রিজ নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাই ও সন্দ্বীপে একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের আহবান জানালেন প্রধানমন্ত্রী * ২১ গুণীজনের ২১শে পদক লাভ * দুদকের ৩৩ মামলায় ৩৮৪ বছর কারাদণ্ড হয়েছিল নির্দোষ জাহালমের! * প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া হবে - প্রধানমন্ত্রী * সব ধরনের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করার তাগিদ দিলেন প্রধানমন্ত্রী * এবারের বিশ্ব ইজতেমা ৪ দিনে অনুষ্ঠিত হবে: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী * উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু * উপজেলা নির্বাচনের প্রথম দফা তফসিল আজ * আসছে ৫ লাখ কোটির বাজেট : নির্বাচনী ইশতেহার হচ্ছে মূল ভিত্তি , উদ্দেশ্য দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থান, সামাজিক সুরক্ষা এবং বিনিয়োগে আকৃষ্ট করা *
     05,2018 Monday at 08:00:08 Share

আদালত-সরকার দ্বন্দ্বে উত্তেজনা, কী ঘটতে যাচ্ছে মালদ্বীপে ?

আদালত-সরকার দ্বন্দ্বে উত্তেজনা, কী ঘটতে যাচ্ছে মালদ্বীপে ?

আদালত ও সরকার মুখোমুখি অবস্থান নেওয়ায় চরম উত্তেজনা চলছে দক্ষিণ এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র মালদ্বীপে। সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহামেদ নাশিদের বিচার করাকে হাই কোর্টে শুক্রবার অবৈধ ঘোষণা এবং বিরোধী ১২ এমপিকে মুক্তি দেওয়ার আদেশ দিলে সরকারও পাল্টা পদক্ষেপে পার্লামেন্টের কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে। রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি দিতে আদালতের আদেশ অমান্য করায় দেশটির সুপ্রিম কোর্ট প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিনকে গ্রেফতার বা অভিশংসন করতে পারে বলে আশংকা করছে সরকার। সেই সঙ্গে প্রেসিডেন্ট আব্দুল্লাহ ইয়ামিনকে গ্রেপ্তারে আদালতের যে কোনো পদক্ষেপ ঠেকাতে নিরাপত্তা বাহিনীকেও সরকার তপর করেছে। পুলিশ এবং সেনাবাহিনীও জোর দিয়ে বলছে, তারা এ আদেশ কার্যকর করবে না। এদিকে বিরোধী আইনপ্রণেতারা পার্লামেন্ট ভবন চত্বরে প্রবেশের চেষ্টা করায় সেনাবাহিনী ভবনটি ঘিরে রেখেছে।


বিরোধী দল মালদিভিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টির ১২ এমপিকে মুক্তি দেওয়ায় এখন তারাই পার্লামেন্টের সংখ্যাগরিষ্ঠ দল। ওই ১২ জনের মধ্যে নয়জন দেশে কারাবন্দি আছেন। বাকিরা স্বেচ্ছা নির্বাসনে চলে যান।


দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল মোহামেদ অনিল বলেন, প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করা বা গ্রেপ্তারের যে কোনো উদ্যোগ বেআইনি হবে। বিবিসি জানায়, অনিল প্রতিরক্ষা প্রধান জেনারেল শিয়াম ও ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কমিশনার আব্দুল্লাহ নওয়াজকে নিয়ে গতকাল রোববার একটি সংবাদ সম্মেলন করেন। সেখানে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, “আমরা এমন কিছু ঘটনা ঘটার ইঙ্গিত পেয়েছি, যা জাতীয় নিরাপত্তাকে সঙ্কটের মুখে ফেলে দেবে। ওই তথ্যানুযায়ী, খুব সম্ভবত সুপ্রিম কোর্ট প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতাচ্যুত করার বা অভিশংসনের নির্দেশ দিতে পারেন। যা অসাংবিধানিক হবে এবং সরকারের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এ ধরণের ঘটনা কিছুতেই ঘটতে দেবে না।”


টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা একটি অনুষ্ঠানে জ্যেষ্ঠ সেনা ও পুলিশ কর্মকর্তাদের তাদের প্রাণের বিনিময়ে হলেও সরকার রক্ষার শপথ নিতে দেখা যায় বলে জানায় বিবিসি। মালদিভিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টির মুখপাত্র হামিদ আব্দুল গফুর বলেন, “পুলিশ শনিবার রাতভর প্রধান বিচারপতিসহ সুপ্রিমকোর্টের জ্যেষ্ঠ দুই বিচারককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করেছে। তাদের বিরুদ্ধে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ আনা হয়েছে। সরকার অন্যায়ভাবে বিচারবিভাগের দখল নেওয়ার চেষ্টা করছে।”


এদিকে, সুপ্রিম কোর্টে খালাস পাওয়ার পর স্বেচ্ছা নির্বাসন ছেড়ে দেশে ফেরা মালদিভিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টির দুই নেতাকে রোববার বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার আব্দুল্লাহ সিনান ও ইলহাম আহমেদের বিরুদ্ধে ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে বলে জানায় কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরা। প্রসঙ্গত, সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে ২০১৫ সালে নাশিদকে ১৩ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। আন্তর্জাতিক অঙ্গন ওই রায়ের তীব্র সমালোচনা করে এবং যুক্তরাজ্য নাশিদকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেওয়ার প্রস্তাব দেয়। বর্তমানে শ্রীলঙ্কায় স্বেচ্ছা নির্বাসনে আছেন মালদ্বীপে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট নাশিদ। সুপ্রিম কোর্টের আদেশ না মানা ‘অভ্যূত্থানের সামিল’ বর্ণনা করে নাশিদ বলেন, প্রেসিডেন্ট ইয়ামিনের এখনই পদত্যাগ করা উচিত। তিনি মালদ্বীপের নিরাপত্তা বাহিনীকে সংবিধান সমুন্নত রাখার আহ্বানও জানান।


গত বৃহস্পতিবার মালদ্বীপের সুপ্রিম কোর্ট নাশিদ ও অন্যান্য বিরোধী দলের নেতাদের বিচার ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং অসাংবিধানিক’ বর্ণনা করে অবিলম্বে তাদের মুক্তি দিয়ে নিজ নিজ পদ পুনঃপ্রতিষ্ঠার নির্দেশ দেন।


এদিকে গতকাল সকালে পার্লামেন্টের সেক্রেটারি জেনারেল আহমেদ মোহামেদ সুনির্দিষ্ট কোন কারণ উল্লেখ না করেই পদত্যাগের ঘোষণা দেন। নিরাপত্তার কারণে চলতি বছরের প্রথম পার্লামেন্ট অধিবেশন অনির্দিষ্টকালের জন্যে স্থগিত করার পরই পার্লামেন্টের সেক্রেটারি জেনারেল পদত্যাগের এ ঘোষণা আসে। আজ সোমবার পার্লামেন্ট অধিবেশন শুরুর কথা ছিল। খবর বিডিনিউজ ও বাসসের।

User Comments

  • আন্তর্জাতিক