১৭ জুন ২০১৯ ১৯:১৭:৩৩
logo
logo banner
HeadLine
টিকে থাকার ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ, একাদশে লিটন * ব্যাংকে টাকা আছে তবে লুটে খাওয়ার টাকা নেই: সংসদে প্রধানমন্ত্রী * সামনে দেশী-বিদেশী নানা চক্রান্ত ষড়যন্ত্র, ওসব মোকাবেলায় প্রস্তুত থাকুন - প্রধানমন্ত্রী * চট্টগ্রামে বিশ্বমানের সেবা নিয়ে আজ যাত্রা শুরু করছে ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল * ঋণের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে না আনলে কঠোর ব্যবস্থার হুশিয়ারি * পত্রিকা-টিভির মালিকদের ঋণের খবর নিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী * অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিবন্ধনের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর * ২০৩০ সালের মধ্যে ৩ কোটি যুবকের কর্মসংস্থান করা হবে * নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী 'আমার গ্রাম আমার শহর' বাস্তবায়নে ৬৬২৩৪ কোটি টাকা * এই বাজেটে ধনী ও ব্যবসায়ী গোষ্ঠীর স্বার্থ রক্ষা করছে সরকার: বিএনপি * এ বাজেট জনকল্যাণমুখী: বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী * ২০১৯-২০ বাজেট বক্তৃতায় দেশের অগ্রগতি ও উন্নয়নের ইতিবাচক কিছু তথ্য * একনজরে স্বাধীন বাংলাদেশের সকল বাজেট : ৭৮৬ কোটি থেকে ৫ লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকা * যুবদের 'ব্যবসা উদ্যোগ' সৃষ্টিতে ১০০ কোটি টাকা * পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের করমুক্ত আয়সীমা দ্বিগুন হল * পোশাক শিল্পে প্রণোদনা ২৮২৫ কোটি টাকা * আবারও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হবে * বাজেটে সবার জন্য পেনশন ব্যবস্থা * মুক্তিযোদ্ধাসহ ভাতা বাড়ল যাদের * করমুক্ত আয়ের সীমা থাকছে আগের মতোই * প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ৮ দশমিক ২০ * করদাতার সংখ্যা শিগগির এক কোটিতে নেওয়া হবে: অর্থমন্ত্রী * বাজেট কর্মমুখী, আছে কিছু হতাশাও * এডিপির জন্য বরাদ্দ ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকা * ১৮ বছরের কম বয়সীদের এনআইডি দেয়া হবে * এবারও সর্বোচ্চ বরাদ্দ শিক্ষা ও প্রযুক্তিতে * এই প্রথম প্রবাসীদের জন্য বীমা ও ২% প্রণোদনা * কালো টাকা সাদা করার সুযোগ বেড়েছে আরও * বিকেলে বাজেট-উত্তর প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন * বেতন-ভাতা-ভর্তুকি, সুদে বরাদ্দ ৬০ শতাংশ, উন্নয়নে ৪০ *
     17,2018 Saturday at 08:46:36 Share

সকালের নাস্তায় পান্তা ভাত

সকালের নাস্তায় পান্তা ভাত

অধ্যাপক নইম কাদের :: গ্রাম বাংলার ঐতিহ্য পান্তা ভাত। গ্রামে জন্মেছে, গ্রামে বড় হয়েছে এমন প্রতিটি মানুষ পান্তা ভাতের সাথে পরিচিত। এক সময় পান্তা ভাত গ্রামের অবহেলিত ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর সকালের খাবার হিসেবে বিবেচিত হলেও স্বাস্থ্য সুরক্ষায় পান্তা ভাতের ভূমিকা বিষয়ে চিকিৎসা বিজ্ঞানের গবেষণায় চোখ বড় হয়ে যাবার মত তথ্য বেরিয়ে এসেছে। পুষ্টিবিজ্ঞানীরা বলেছেন– সাধারণ ভাতের তুলনায় পান্তা ভাত হাজার গুণ বেশি পুষ্টিসমৃদ্ধ।


পান্তা ভাত পুরোটাই শর্করা সমৃদ্ধ খাবার। শত শত বছর ধরে বাংলাদেশ সহ দক্ষিণ ভারতের মানুষ বিশেষ করে দরিদ্র শ্রেণির মানুষ পান্তা ভাত খেতে অভ্যস্ত। তামিল ভাষায় পান্তা ভাতকে বলে পাঝিয়া সাধম (বাসি ভাত), তেলেগু ভাষায় সাধেন্নাম(ঠাণ্ডা ভাত), সংস্কৃতে বলে কাঞ্জিকা।


রাতে রান্না করা ভাত সবাই খাওয়া শেষ করে যদি কিছু রয়ে যায়, পরদিন সকালে খাওয়ার জন্য তা পানিতে ভিজিয়ে রেখে সংরক্ষণ করা হয়। পানিতে ভিজিয়ে রাখা হয় বলেই এর নাম পান্তা ভাত। দরিদ্র জনগোষ্ঠী পান্তা ভাত খান কাঁচা মরিচ ও লবণ মিশিয়ে। যাদের কিছুটা সামর্থ্য আছে তাঁরা সরিষার তেলের সাথে আলু ভর্তা, বেগুন ভর্তা, সুটকি যোগ করেন। আমি গ্রামে বড় হয়েছি। ছোট বেলায় আমার দাদী, নানী এবং আমার মাকেও দেখেছি রাতের রান্নায় চাউল কিছুটা বাড়িয়ে দিতেন, যাতে সকালে পান্তা ভাত খাওয়া যায়। এর মাধ্যমে গ্রাম বাংলায় মধ্যবিত্ত পরিবার পরিচালনায় একটি সুষ্ঠু পরিকল্পনার চমৎকার দিক ফুটে ওঠে। যেমন সকালে আর রান্না করা লাগে না। এতে সময় ও শ্রম দুটোই বেঁচে যায়। অপব্যয় হয় না।


পান্তা ভাতের পুষ্টিগুণ : পান্তাভাত পুরোটাই শর্করা সমৃদ্ধ খাবার। পান্তা ভাতে খাদ্য ক্যালরি অনেক বেশি। চাল ভেদে এক কাপ ভাতে ২০০ থেকে ২৪২ ক্যালরি পর্যন্ত পাওয় যায়।


সম্প্রতি আসাম কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক বৈজ্ঞানিক গবেষণায় প্রমাণ করেছেন যে, প্রতি ১০০ গ্রাম পান্তা ভাতে আয়রন ৭৩.৯১মিলিগ্রাম, স্বাভাবিক ভাতে থাকে মাত্র ৩.৪ মিলিগ্রাম। ১০০গ্রাম পান্তাভাতে ক্যালসিয়ামের পরিমাণ ৮৫০ মিলিগ্রাম, সাধারণ ভাতে ২১ মিলিগ্রাম। পান্তা ভাতে পটাশিয়াম ৮৩৯ মিলিগ্রাম, সাধারণ ভাতে ৩৫ মিলিগ্রাম। অপরদিকে পান্তা ভাতে সোডিয়াম কমে হয় ৩০৩মিলিগ্রাম, সাধারণ ভাতে সোডিয়াম ৪৭৫ মিলিগ্রাম। পান্তা ভাতে ভিটামিন বি–৬, ভিটামিন বি– ১২ পর্যাপ্ত পরিমাণে থাকে।


পান্তা ভাত শরীরে পানিশূন্যতা রোধ করে, তাপের ভারসাম্য রক্ষা করে, পানির অভাব মেটায়। গরমে হিটস্ট্রোক থেকে রক্ষা করে। পেটের পীড়া ভাল হয়,কোষ্ঠবদ্ধতা দূর হয়, গ্যাস্ট্রিক কমায়। মানবদেহের উপকারী বহু ব্যাক্টেরিয়া পান্তা ভাতের মধ্যে বেড়ে ওঠে। যার ফলে খাদ্য সহজে হজম হয়।


গবেষণায় দেখা গেছে, ভাত পানিতে ভিজিয়ে রাখলে বিভিন্ন গাজনকারী ব্যাক্টেরিয়া গাজন প্রক্রিয়ায় শর্করা ভেঙে ইথানল ও ল্যাকটিক অ্যাসিড তৈরি করে। এর ফলে পান্তায় অন্ধত্ব বেড়ে যায়, এবং পচনকারী ও ক্ষতিকর অন্যান্য ব্যাক্টেরিয়া, ছাত্রাক ভাতকে নষ্ট করতে পারে না।


আমেরিকান নিউট্রিশন অ্যাসোসিয়েশন এর গবেষণায় দেখা গেছে ভাত পানিতে ভিজিয়ে রাখলে পাকস্থলি প্যানক্রিয়াটিক অ্যামাইলেজসহ কিছু এনজাইমের কার্যকারিতা বহুগুণ বেড়ে যায়। জটিল শর্করাগুলো সহজে হজম হয়। পান্তা ভাতে শরীরে বেশি শক্তি পাওয় যায়, ক্লান্তি দূর হয়,শরীর হাল্কা লাগে। এলার্জি জনিত সমস্যা দূর হয়, ত্বক ভাল থাকে। হার্ট সুস্থ থাকে। শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।


বাস্তবতায় দেখা যায়, গ্রামে শ্রমজীবী মানুষ যারা সকালে পান্তা ভাত খেয়ে দীর্ঘক্ষণ পরিশ্রম করতে পারেন, শহরে যারা রুটি–পরটা, চা বিস্কট, পাউরুটি খায়,তারা সে পরিমাণ পরিশ্রম করতে পারে না।


আধুনিক শহুরে জীবনে যারা ১লা বৈশাখে ইলিশ মাছ দিয়ে পান্তা ভাত খান, তাদের সাথে আমার দেখা গ্রামের সেই পান্তা ভাতের কোন তুলনা চলে না। গ্রামের কৃষিজীবী মানুষ দল বেঁধে জমির আইলে বসে লবণ কাঁচা মরিচ মিশিয়ে পান্তা ভাত খান ক্ষুধা নিবারণের জন্য, শরীরে শক্তি সঞ্চয় করে পরিশ্রম করার জন্য। বিলাসিতার সুযোগ সেখানে নেই।


যারা বলেন পান্তা ভাত বাঙালি সংস্কৃতির অংশ ও ঐতিহ্য। জানি না তারা তাদের বাসায় এই সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য কতটুকু লালন করেন। তবে গ্রাম বাংলার শ্রমজীবী মানুষ সংস্কৃতি কী, ঐতিহ্য কী এসব বুঝেন না। তারা বুঝেন পান্তা ভাত তাদের ক্ষুধা নিবারণ করে, পান্তা ভাত তাঁদের শরীরে শক্তি যোগায়।


সতর্কতা :


পান্তা ভাত খাওয়ার সময় সাথে কাঁচা লবণ বেশি না মেশালেই ভাল। ডায়াবেটিস রোগী ও অতিরিক্ত বয়ষ্কদের জন্য কিছুটা ক্ষতিকর। আধুনিক জীবনে কি শহর,কি নগর, সর্বত্র পান্তা ভাতের জায়গা দখল করেছে ফাস্টফুড। ফাস্টফুড যতদ্রুত বিদায় করা যায় ততই মঙ্গল। (দৈনিক আজাদীতে প্রকাশিত)।

User Comments

  • আরো