১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ৩:৫৩:১৮
logo
logo banner
HeadLine
দ্রুতগতিতে চলছে ১০ মেগা প্রকল্প ও ১০০ অর্থনৈতিক অঞ্চলের নির্মাণকাজ * ভবিষ্যতে তরুণদের সুযোগ করে দিতে চাই - শেখ হাসিনা * একদিন আগেই শুরু হল বিশ্ব এজতেমা * ছয় দিনের সফরে প্রধানমন্ত্রী আজ জার্মানি যাচ্ছেন * ২৮ দিনে জমির নামজারি , সর্বোচ্চ ৫৩ দিনে নক্সা অনুমোদন, ভবন নির্মাণে বীমা বাধ্যতামুলক * ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য উন্নত দেশ গড়তে চাই - প্রধানমন্ত্রী * ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবি গ্রামবাসী সংঘর্ষ, নিহত চার * কর্ণফুলী টানেল : চট্টগ্রাম হবে ওয়ান সিটি টু টাউন * ১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচন * 'জয় বাংলা' মুক্তিযুদ্ধের স্লোগান, বীর বাঙালীর স্লোগান * সব হজযাত্রায় খরচ বেড়েছে * ডাকসু'র তফসিল আজ * অল্প জমি ও মাটি ছাড়া সবজি, ফুল, ফল উৎপাদনের প্রযুক্তিকে চাষী পর্যায়ে নিয়ে যান - কৃষিমন্ত্রী * আরও ১২২ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ প্রার্থীর নাম ঘোষণা * রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ বাসস্থান চায় ঢাকা * হিন্দুকুশের বরফ দ্রুত গলছে : ভেসে যাবে দশ নদীর অববাহিকা , বিপন্ন হবে ২শ' কোটি লোক * উপজেলা নির্বাচনে ৮৭ চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম ঘোষণা করল আওয়ামীলীগ, ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীতা থাকবে উন্মুক্ত * জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের ঘোষনা * শিশুদের ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে আজ * দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর অঙ্গীকার বাস্তবে রূপ দিতে হবে * সব ধরনের কোচিং বাণিজ্য বন্ধে সরকারের নীতিমালা বৈধ: হাইকোর্ট * সন্দ্বীপ-চট্টগ্রাম ব্রিজ নির্মাণের সম্ভাব্যতা যাচাই ও সন্দ্বীপে একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের আহবান জানালেন প্রধানমন্ত্রী * ২১ গুণীজনের ২১শে পদক লাভ * দুদকের ৩৩ মামলায় ৩৮৪ বছর কারাদণ্ড হয়েছিল নির্দোষ জাহালমের! * প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া হবে - প্রধানমন্ত্রী * সব ধরনের মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করার তাগিদ দিলেন প্রধানমন্ত্রী * এবারের বিশ্ব ইজতেমা ৪ দিনে অনুষ্ঠিত হবে: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী * উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু * উপজেলা নির্বাচনের প্রথম দফা তফসিল আজ * আসছে ৫ লাখ কোটির বাজেট : নির্বাচনী ইশতেহার হচ্ছে মূল ভিত্তি , উদ্দেশ্য দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থান, সামাজিক সুরক্ষা এবং বিনিয়োগে আকৃষ্ট করা *
     10,2018 Tuesday at 09:30:04 Share

শেখ হাসিনার কাছে তৃণমূলের খামে ভরা অভিযোগ

শেখ হাসিনার কাছে তৃণমূলের খামে ভরা অভিযোগ

আওয়ামী লীগের প্রাণশক্তি তৃণমূলের নেতারা এলাকার সাংগঠনিক নানা সমস্যার কথা বক্তব্যে তুলে ধরতে না পারলেও কাগজে লিখে দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার বরাবর খামে ভরে দিয়ে গেছেন। আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারাদেশের তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাত করবেন, তাদের কথা শুনবেন ও নির্দেশনা দেবেন এই আগ্রহ নিয়ে ঢাকায় ডেকে পাঠান তাদেরকে। তিন দফায় সারাদেশ থেকে জেলা, উপজেলা, থানা, মহানগর ও ইউনিয়ন পর্যায়ের দলীয় তৃণমূল নেতারা গণভবনে এসে শেখ হাসিনার নির্দেশনা নিয়ে যান। বিশেষ ওই বর্ধিত সভায় মাত্র হাতে গোনা কয়েকজন তৃণমূল নেতা শেখ হাসিনার সামনে মাইকে তাদের বক্তব্য তুলে ধরার সুযোগ পেয়েছেন। তবে মাইকে কথা বলার সুযোগ পেলেও নানা কারণে তারা মনের সব কথা খুলে বলতে পারেননি। একারণে দলীয় প্রধান সুযোগ দেওয়ায় তারাসহ বাকিরা নিজস্ব ভাবনা ও মতামতগুলো লিখে খামে ভরে গণভবনে জমা দিয়েছেন। তাদের আশা, দলীয় নেত্রী এসব চিঠি পড়বেন এবং দল ও সরকারের ভালোর জন্য মাঠের সমস্যাগুলো নিরসনে দলীয়ভাবে উদ্যোগ নেবেন। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কয়েকজন নেতা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ বলেন, বিশেষ বর্ধিত সভায় আসা তৃণমূল নেতারা লিখিত বক্তব্য খামে ভরে জমা দিয়ে গেছেন। এগুলো দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। তিনি এসব চিঠি পড়ে করণীয় ঠিক করবেন।


শেখ হাসিনা বরাবরে তৃণমূল নেতাদের লেখা চিঠি ভরা খামগুলো দেখেছেন এমন কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা জানান, অধিকাংশ খামেই বিভিন্ন অঞ্চলে বিরাজমান কোন্দলের কথা জানানো হয়েছে। কারা এর সঙ্গে জড়িত তাদের নামও ওই খামে লিখে দিয়ে গেছেন তৃণমূল থেকে আসা নেতারা। কিছু নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগও করা হয়েছে। আবার কিছু খামে কোন কাজগুলো করলে সরকারের ও দলের ভালো হবে সেসব পরামর্শও দেওয়া হয়েছে।
জানা গেছে, ওইসব খামে আগামীতে প্রকৃত রাজনীতিবিদদের মনোনয়ন দেওয়ার প্রস্তাবও রয়েছে।  এছাড়াও তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে জনপ্রতিনিধিদের দূরত্বের অভিযোগও রয়েছে। অনেকে ব্যক্তিগত চাওয়া-পাওয়ার কথাও লিখে গেছেন।
আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা ও গণভবনের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, প্রকাশ্যে শেখ হাসিনার কাছে অভিযোগ দেওয়া হলে পরে এলাকার প্রভাবশালী হয়ে ওঠা নেতাদের রোষানলে পড়তে হতে পারে এই আশঙ্কা থাকায় খামে ভরে অভিযোগ জানিয়ে গেছেন তৃণমূল নেতারা।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্টাফ ও দলের প্রচার ও দফতরের দায়িত্বে থাকা নেতাদের হাতে তৃণমূল নেতারা অভিযোগ লেখা খাম দিয়ে যান। পরে এগুলো একত্রিত করে শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত কর্মকর্তাদের হাতে পৌঁছে দেওয়া হয়। কেন্দ্রীয় কয়েকজন নেতা জানান, অভিযোগের খামগুলো খুলে শেখ হাসিনা পড়বেন এবং যেসব জেলায় সাংগঠনিক অবস্থা খারাপ তা তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানা গেছে।


সূত্র জানায়, গত তিন দফায় আয়োজিত বিশেষ বর্ধিত সভায় সারাদেশ থেকে প্রায় ৩৩ হাজার নেতাকর্মী গণভবনে এসেছেন। কিন্তু, কথা বলার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে মাত্র ৩০/৩৫ জন নেতার। যারা কথা বলতে পারেননি খামে ভরে নিজ নিজ মতামত দিয়ে গেছেন তারাই। গণভবন সূত্র জানায়, অন্তত হাজার খানেক তৃণমূল নেতার কাছ থেকে খামবদ্ধ মতামত পাওয়া গেছে।


এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, অনেক তৃণমূল নেতা গণভবনে এসে সময় স্বল্পতার কারণে কথা বলতে পারেননি। নেত্রী (শেখ হাসিনা) তাদের লিখিত মতামত দেওয়ার সুযোগ দেওয়ায় তারা খামে ভরে নেত্রী  বরাবর লিখিত বক্তব্য দিয়ে গেছেন। বাংলা ট্রিবিউন।

User Comments

  • রাজনীতি