১৭ জুন ২০১৯ ১৯:১৮:৪১
logo
logo banner
HeadLine
টিকে থাকার ম্যাচে টস জিতে ফিল্ডিংয়ে বাংলাদেশ, একাদশে লিটন * ব্যাংকে টাকা আছে তবে লুটে খাওয়ার টাকা নেই: সংসদে প্রধানমন্ত্রী * সামনে দেশী-বিদেশী নানা চক্রান্ত ষড়যন্ত্র, ওসব মোকাবেলায় প্রস্তুত থাকুন - প্রধানমন্ত্রী * চট্টগ্রামে বিশ্বমানের সেবা নিয়ে আজ যাত্রা শুরু করছে ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল * ঋণের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে না আনলে কঠোর ব্যবস্থার হুশিয়ারি * পত্রিকা-টিভির মালিকদের ঋণের খবর নিতে বললেন প্রধানমন্ত্রী * অনলাইন নিউজ পোর্টাল নিবন্ধনের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর * ২০৩০ সালের মধ্যে ৩ কোটি যুবকের কর্মসংস্থান করা হবে * নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী 'আমার গ্রাম আমার শহর' বাস্তবায়নে ৬৬২৩৪ কোটি টাকা * এই বাজেটে ধনী ও ব্যবসায়ী গোষ্ঠীর স্বার্থ রক্ষা করছে সরকার: বিএনপি * এ বাজেট জনকল্যাণমুখী: বাজেট পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী * ২০১৯-২০ বাজেট বক্তৃতায় দেশের অগ্রগতি ও উন্নয়নের ইতিবাচক কিছু তথ্য * একনজরে স্বাধীন বাংলাদেশের সকল বাজেট : ৭৮৬ কোটি থেকে ৫ লাখ ২৩ হাজার কোটি টাকা * যুবদের 'ব্যবসা উদ্যোগ' সৃষ্টিতে ১০০ কোটি টাকা * পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের করমুক্ত আয়সীমা দ্বিগুন হল * পোশাক শিল্পে প্রণোদনা ২৮২৫ কোটি টাকা * আবারও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হবে * বাজেটে সবার জন্য পেনশন ব্যবস্থা * মুক্তিযোদ্ধাসহ ভাতা বাড়ল যাদের * করমুক্ত আয়ের সীমা থাকছে আগের মতোই * প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ৮ দশমিক ২০ * করদাতার সংখ্যা শিগগির এক কোটিতে নেওয়া হবে: অর্থমন্ত্রী * বাজেট কর্মমুখী, আছে কিছু হতাশাও * এডিপির জন্য বরাদ্দ ২ লাখ ২ হাজার ৭২১ কোটি টাকা * ১৮ বছরের কম বয়সীদের এনআইডি দেয়া হবে * এবারও সর্বোচ্চ বরাদ্দ শিক্ষা ও প্রযুক্তিতে * এই প্রথম প্রবাসীদের জন্য বীমা ও ২% প্রণোদনা * কালো টাকা সাদা করার সুযোগ বেড়েছে আরও * বিকেলে বাজেট-উত্তর প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন * বেতন-ভাতা-ভর্তুকি, সুদে বরাদ্দ ৬০ শতাংশ, উন্নয়নে ৪০ *
     24,2019 Sunday at 10:52:01 Share

কিছু ফ্রাঙ্কেনস্টাইন শেখ হাসিনার অর্জনকে ধ্বংস করে দেবে, এদের রুখতে হবে - নাসিম

কিছু ফ্রাঙ্কেনস্টাইন শেখ হাসিনার অর্জনকে ধ্বংস করে দেবে, এদের রুখতে হবে - নাসিম

আওয়ামী লীগ সভাপতিম-লীর সদস্য ও কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, সড়ক-মহাসড়কে নৈরাজ্য, নানা ক্ষেত্রে প্রশাসনের শিথিলতা, মাদক ও নারী-শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে এখন থেকে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলবে ১৪ দল। এসব ফ্রাঙ্কেনস্টাইনকে রুখতে হবে। এসব ফ্রাঙ্কেনস্টাইন শেখ হাসিনার অর্জনকে ধ্বংস করে দেবে।


শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বঙ্গবন্ধু একাডেমি আয়োজিত প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মোঃ জিল্লুর রহমানের স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় কিছু ফ্রাঙ্কেনস্টাইন গড়ে উঠেছে, যারা কারো কথাই মানতে চান না। এমনকি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনাও তারা মানছেন না। সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে মন্ত্রিসভায় গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু এখনও কেন তা বাস্তবায়ন হলো না? তিনি বলেন, কিছু অতি উৎসাহী শ্রমিক নেতা, প্রশাসনের কর্মকর্তা ও সরকার সমর্থিত পেশাজীবী লোকজন আছেন তারা কারোর নির্দেশই মানতে চাচ্ছেন না। এদের রুখতে না পারলে শেখ হাসিনার কষ্টার্জিত সকল অর্জন ধ্বংস হয়ে যাবে। তাই ১৪ দল সভা-সমাবেশ, সেমিনারসহ বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলবে। সাবেক এই স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার সাহস, বিচক্ষণতা ও সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত গ্রহণের কারণেই আমরা টানা তৃতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় আছি। শেখ হাসিনা কঠোর হাতে জঙ্গী দমন করেছেন। শিক্ষা-স্বাস্থ্যসহ সকল সেক্টরে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। তিনি বলেন, প্রশাসনকে দিয়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু করার চেষ্টা করছে নির্বাচন কমিশন। এ জন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই। কিন্তু অতিউৎসাহী প্রশাসনের কর্মকর্তারা, তারা মাঠপর্যায়ে থেকে এ নির্বাচন কমিশনের ভূমিকাকে খাটো করার চেষ্টা করে যাচ্ছে।


তিনি বলেন, ছোট ছোট লাট আছে বিভিন্ন জায়গায়, তারা প্রধানমন্ত্রীর চেয়ে বেশি ক্ষমতাবান মনে করে নিজেকে। স্থানীয় পর্যায়ে এসব ছোট ছোট লাট উপজেলা নির্বাচনে তার প্রার্থীকে জেতানোর জন্য এমন কোন কাজ নেই যেটা তারা করে না। এটা হতে পারে না। উপজেলা নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হোক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও তা চান। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু কিছু কিছু প্রভাবশালী নেতা এখনও প্রশাসনকে চাপ দিয়ে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনে বাধা সৃষ্টি করছে।


মোহাম্মদ নাসিম প্রশ্ন রেখে বলেন, এসব তথাকথিত ক্ষমতাধর ব্যক্তি কারা? যারা প্রভাব বিস্তার করে নির্বাচনকে বিতর্কিত করতে চায়, তাদের প্রতিহত করতে হবে। নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করব, আপনারা ক্ষমতা প্রয়োগ করবেন। এ ধরনের কোন কারচুপির চেষ্টা যেন না হয়, দেখবেন। নির্বাচনে ভোটারদের ভোট দিতে হবে। ভোটার আসতে হবে। এখন আস্তে আস্তে ভোটাররা আসছে। সেই বিএনপি-জামায়াতের নির্বাচন বর্জনের সংস্কৃতি উপেক্ষা করে মানুষ এখন আসছে। এটাকে সফল করতে হবে আমাদের। সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরও বলেন, আর কেউ চক্রান্ত করতে পারবে না, এটা ভাবলে চলবে না। পঁচাত্তরের পর আওয়ামী লীগের ঘরে বাতি জ্বালানোর লোক খুঁজে পাওয়া যেত না। আওয়ামী লীগের দুর্দিনে অনেকেরই পাওয়া যায়নি।


নাসিম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, একের পর এক মানুষ নিহত হচ্ছে সড়কে। ক্যাবিনেটে সিদ্ধান্ত হয়েছে, আমি যখন মন্ত্রী ছিলাম তখন কাজ করেছি, প্রধানমন্ত্রীও নির্দেশ দিয়েছেন, পার্লামেন্টে আলোচনা হয়েছে। কয়েকটি বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছিল। সেগুলো বাস্তবায়ন করতে প্রশাসন, বিআরটিএসহ সড়ক পরিবহন সেক্টর, এমনকি পুলিশসহ সব আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বলা হয়েছিল। তাহলে কেন সেগুলো বাস্তবায়ন হচ্ছে না? বাস্তবায়নের বাধা প্রদানকারী ক্ষমতাধর ব্যক্তি কারা? তারা পরিবহন সেক্টরে, হয়তো শ্রমিক নেতা, অথবা বাস মালিক অথবা প্রশাসনের লোক। একটা করে জীবন যাবে রাস্তায় আর সরকার দায়ী হবে? একটা জীবনের দাম কি ১০ লাখ টাকা? একটা জীবন কি অর্থের বিনিময়ে বিক্রি হয়ে যাবে? যারা এ ব্যাপারে কাজ করে তারা সবাই দায়ী। এসব ফ্রাঙ্কেনস্টাইনকে রুখতে হবে। এসব ফ্রাঙ্কেনস্টাইন শেখ হাসিনার অর্জনকে নষ্ট করে দেবে।


বঙ্গবন্ধু একাডেমির সভাপতি নাজমুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন, মোজাফফর হোসেন পল্টু, আজকের সূর্যোদয়ের প্রধান সম্পাদক খোন্দকার মোজাম্মেল হক, আওয়ামী লীগ নেতা এম এ করিম, সংগঠনের মহাসচিব হুমায়ুন কবির মিজি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।জনকণ্ঠ। 

User Comments

  • রাজনীতি