২৭ নভেম্বর ২০২০ ২৩:১৩:২৪
logo
logo banner
HeadLine
২৭ নভেম্বার : দেশে আজ শনাক্ত ২২৭৩, মৃত ২০, সুস্থ ২২২৩ * পদ্মায় স্থাপিত হলো ৩৯তম স্প্যান, দৃশ্যমান ৫ দশমিক ৮৫০কিলোমিটার * ক্যান্সার ও করোনার কাছে হেরে গেলেন আলী যাকের, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক * মেধা, জ্ঞান, বুদ্ধি ও মননকে দেশের কাজে লাগাতে সরকারি কর্মচারিদের প্রতি আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর * ২৬ নভেম্বার : দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা সাড়ে ৬ হাজার ছাড়িয়েছে, সুস্থ ৩,৭১,৪৫৩ জন * সব শ্রেণিতে ভর্তি এবার লটারিতে * বিদায় দিয়েগো আর্মান্দো ম্যারাডোনা * ২৫ নভেম্বার : দেশে শনাক্ত আরও ২১৫৬, মারা গেছেন ৩৯ জন, সুস্থ ২,৩০২ * অন্ধ্র ও তামিলনাড়ুর দিকে আগাচ্ছে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় 'নিভার' * ১০ হাজার ৭শ' কোটি টাকার ৭টি প্রকল্প একনেকে অনুমোদন * ২৪ নভেম্বার : দেশে করোনা সংক্রমণ সাড়ে ৪ লাখ ছাড়িয়েছে, সুস্থ ৩,৬৬,৮৭৭ * বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহারে আরো কঠোর হতে পদক্ষেপ নিচ্ছে সরকার * ২৩ নভেম্বার : দেশে শনাক্ত আরও ২৪১৯, মারা গেছেন ২৮, সুস্থ ২১৮৩ জন * ২৫ পৌরসভার নির্বাচন ২৮ ডিসেম্বর * মূর্তি বা ভাস্কর্য মানেই শিরকের উপকরণ নয়: হাফেজ মাওলানা জিয়াউল হাসান *
     22,2020 Sunday at 17:47:10 Share

২৭ অক্টোবার : দেশে করোনায় আজ শনাক্ত ১৩৩৫, মারা গেছেন ২০ জন, সুস্থ ১৫২৩

২৭ অক্টোবার : দেশে করোনায় আজ শনাক্ত ১৩৩৫, মারা গেছেন ২০ জন, সুস্থ ১৫২৩

দেশে করোনাভাইরাস শনাক্তের ২৩৪তম দিনে ২৪ ঘন্টায় এই ভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩৩৫ জন। আক্রান্ত হয়ে ২০ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। আর সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫২৩ জন। দেশে মোট শনাক্তের বিবেচনায় আজ মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ। মোট শনাক্তের বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৯.২২ শতাংশ। মোট পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৫৮ শতাংশ।

আজ স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতাল এবং বাসায় মিলিয়ে সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫২৩ জন। গতকালের চেয়ে আজ ৩০ জন বেশি সুস্থ হয়েছেন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ১৮ হাজার ১২৩ জন।
আজ শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৭৯ দশমিক ২২ শতাংশ। আগের দিন এই হার ছিল ৭৯ দশমিক ১০ শতাংশ। আগের দিনের চেয়ে আজ সুস্থতার হার শূন্য দশমিক ১২ শতাংশ বেশি।
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘন্টায় ১২ হাজার ৬১৭ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১ হাজার ৩৩৫ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। গতকালের চেয়ে আজ ১০১ জন কম শনাক্ত হয়েছে। গতকাল ১৩ হাজার ৭৪৮ জনের নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হয়েছিলেন ১ হাজার ৪৩৬ জন। গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১০ দশমিক ৫৮ শতাংশ। আগের দিন এই হার ছিল ১০ দশমিক ৪৪ শতাংশ। গতকালের চেয়ে আজ শনাক্তের হার শূণ্য দশমিক ১৪ শতাংশ বেশি।
দেশে এ পর্যন্ত মোট ২২ লাখ ৮৩ হাজার ৯৬৪ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৪ লাখ ১ হাজার ৫৮৬ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মোট পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৭ দশমিক ৫৮ শতাংশ। গতকাল পর্যন্ত এই হার ছিল ১৭ দশমিক ৬২ শতাংশ।
বিজ্ঞপ্তিতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ১২ হাজার ৩৮৬ জনের। আগের দিন সংগ্রহ করা হয়েছিল ১৩ হাজার ৬৬৬ জনের। গতকালের চেয়ে আজ ১ হাজার ৩৮০টি নমুনা কম সংগ্রহ করা হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় দেশের ১১১টি পরীক্ষাগারে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১২ হাজার ৬১৭ জনের। আগের দিন নমুনা পরীক্ষা হয়েছিল ১৩ হাজার ৭৫৮ জনের। গত ২৪ ঘন্টায় আগের দিনের চেয়ে ১ হাজার ১৪১টি কম নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার ভিত্তিতে প্রতি ১০ লাখে এ পর্যন্ত শনাক্ত ২৩৫৮ দশমিক শূন্য ২ জন। সুস্থ হয়েছেন প্রতি ১০ লাখে এ পর্যন্ত ১৮৬৭ দশমিক ৯৪ জন এবং প্রতি ১০ লাখে মারা গেছেন এ পর্যন্ত ৩৪ দশমিক ২৮ জন।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, ২৪ ঘণ্টায মৃত্যুবরণকারী ২০ জনের মধ্যে পুরুষ ১৪ জন, আর নারী ৬ জন। এ পর্যন্ত পুরুষ মৃত্যুবরণ করেছেন ৪ হাজার ৪৯৪ জন, আর নারী মৃত্যুবরণ করেছেন ১ হাজার ৩৪৪ জন। শতকরা হিসাবে পুরুষ ৭৬ দশমিক ৯৮ শতাংশ; নারী ২৩ দশমিক শূন্য ২ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় ২০ জনই হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন ।
স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ১১ থেকে ২০ বছরের ১ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের ১ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের ১ জন, ১১ থেকে ৫০ বছরের ২ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের বছরের ৩ জন এবং ষাটোর্ধ্ব রয়েছেন ১২ জন। এখন পর্যন্ত মৃত্যুবরণকারীদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, শূন্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ২৯ জন; যা শূন্য দশমিক ৫০ শতংশ। ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৪৬ জন; যা শূন্য দশমিক ৭৯ শতাংশ। ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ১৩২ জন; যা ২ দশমিক ২৬ শতাংশ। ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৩২২ জন; যা ৫ দশমিক ৫২ শতাংশ; ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৭২৫ জন; যা ১২ দশমিক ৪২ শতাংশ। ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ১ হাজার ৫৪৭ জন; যা ২৬ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং ৬০ বছরের বেশি বয়সের রয়েছেন ৩ হাজার ৩৭ জন; যা ৫২ দশমিক শূন্য ২ শতাংশ।
মৃত্যুবরণকারীদের বিভাগ ভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগে ১৭ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ২ জন এবং খুলনা বিভাগে ১ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে মারা গেছেন ৩ হাজার ২২ জন; যা ৫১ দশমিক ৭৬ শতাংশ। চট্টগ্রাম বিভাগে ১ হাজার ১৫৯ জন; যা ১৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ। রাজশাহী বিভাগে ৩৭০ জন; যা ৬ দশমিক ৩৪ শতাংশ। খুলনা বিভাগে ৪৬৫ জন; যা ৭ দশমিক ৯৭ শতাংশ। বরিশাল বিভাগে ১৯৮ জন; যা ৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ। সিলেট বিভাগে ২৪২ জন; যা ৪ দশমিক ১৫ শতাংশ। রংপুর বিভাগে ২৬১ জন; যা ৪ দশমিক ৪৭ শতাংশ এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ১২১ জন; যা ২ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ।
ঢাকা মহানগরীতে কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ৩ হাজার ৫১৯টি, সাধারণ শয্যায় ভর্তি রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৭৩৯ জন ও শয্যা খালি আছে ১ হাজার ৭৮০টি। আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৩১৪টি, আইসিইউ শয্যায় ভর্তি রোগী আছে ১৭৫ জন ও শয্যা খালি আছে ১৩৯টি।
চট্টগ্রাম মহানগরীতে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ৮২৫টি, ভর্তিকৃত রোগী ১০৯ জন ও শয্যা খালি আছে ৭১৬টি। আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৩৯টি, আইসিইউ শয্যায় ভর্তি আছে ১৫ জন ও শয্যা খালি আছে ২৪টি। সারাদেশে অন্যান্য হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ৭ হাজার ৩৮৬টি, সাধারণ শয্যায় ভর্তিকৃত রোগী ৫১৭ জন ও শয্যা খালি আছে ৬ হাজার ৮৬৯টি এবং আইসিইউ শয্যা রয়েছে ২১১টি ও আইসিইউ শয্যায় ভর্তিকৃত রোগীর সংখ্যা ৮৩ জন ও শয্যা খালি আছে ১২৮টি ।
সারাদেশে হাসপাতালে সাধারণ শয্যা সংখ্যা ১১ হাজার ৭৩০টি, রোগী ভর্তি আছে ২ হাজার ৩৬৫ জন এবং শয্যা খালি আছে ৯ হাজার ৩৬৫টি। সারাদেশে আইসিইউ শয্যা সংখ্যা ৫৬৪টি, রোগী ভর্তি আছে ২৭৩ জন এবং খালি আছে ৩৯১টি। সারাদেশে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংখ্যা ১৩ হাজার ৯০টি। সারাদেশে হাই ফ্লো নেজাল ক্যানেলা সংখ্যা ৫৬৯টি এবং অক্সিজেন কনসেনট্রেটর ৩৫৮টি।
০১৩১৩-৭৯১১৩০, ০১৩১৩-৭৯১১৩৮, ০১৩১৩৭৯১১৩৯ এবং ০১৩১৩৭৯১১৪০ এই নম্বরগুলো থেকে হাসপাতালের সকল তথ্য পাওয়া যাবে। কোন হাসপাতালে কতটি শয্যা খালি আছে। কত রোগী ভর্তি ও কতজন ছাড় পেয়েছেন এবং আইসিইউ শয্যা খালি আছে কি না এই ফোন নম্বরগুলোতে ফোন করে জানা যাবে। এছাড়া www.dghs.gov.bd এর CORONA কর্ণারে “করোনা বিষয়ক অভিযোগ প্রেরণ” লিঙ্ক অথবা http:/app.dghs.gov.bd/covid19-complain লিঙ্ক ব্যবহার করে করোনা বিষয়ক যেকোন অভিযোগ পাঠানো যাবে।
গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হওয়া ১ হাজার ৫২৩ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে রয়েছেন ১ হাজার ১০৭ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৪৩ জন, রংপুর বিভাগে ২১ জন, খুলনা বিভাগে ৭৩ জন, বরিশাল বিভাগে ৮ জন, রাজশাহী বিভাগে ১১২ জন এবং সিলেট বিভাগে ৫৯ জন সুস্থ হয়েছেন।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ১৮৮ জন, আর ছাড়া পেয়েছেন ১৩৮ জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৮৫ হাজার ৫১৩ জন, আর ছাড়া পেয়েছেন ৭৩ হাজার ৪১৮ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১২ হাজার ৯৫ জন।
গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ৮৮২ জন, আর কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়া পেয়েছেন ৭৭৪ জন। এখন পর্যন্ত কোয়ারেন্টিনে যুক্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৫১ হাজার ৮৬৫ জন, আর এখন পর্যন্ত ছাড়া পেয়েছেন ৫ লাখ ১২ হাজার ১৪৭ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৩৯ হাজার ৭১৮ জন।
বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, গত ২৪ ঘন্টায় স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ হটলাইন নম্বরে ফোনকল গ্রহণ করা হয়েছে ৭ হাজার ১৪টি, ৩৩৩ এই নম্বরে ৩২ হাজার ৭২৪টি এবং আইইডিসিআর’র হটলাইন ১০৬৫৫, এই নম্বরে ফোন এসেছে গত ২৪ ঘন্টায় ১৬৫টি। সব মিলিয়ে ২৪ ঘন্টায় ফোনকল গ্রহণ করা হয়েছে ৩৯ হাজার ৯০৩টি। এ পর্যন্ত হটলাইনে ফোনকল এসেছে ২ কোটি ২১ লাখ ৫ হাজার ৭২৭টি।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, দেশের বিমানবন্দর, নৌ, সমুদ্রবন্দর ও স্থলবন্দর দিয়ে গত ২৪ ঘন্টায় ৩ হাজার ১৮৩ জনসহ সর্বমোট বাংলাদেশে আগত ১০ লাখ ৯৪ হাজার ৫৯ জনকে স্ক্রিনিং করা হয়েছে।
দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার পরিস্থিতি তুলে ধরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় করোনায় এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮৯ লাখ ২৪ হাজার ৮৪০ জন এবং এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করেছেন ১ লাখ ৪০ হাজার ১৬৯ জন।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ২৬ অক্টোবর পর্যন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী, সারাবিশ্বে এ পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪ কোটি ২৯ লাখ ৬৬ হাজার ৩৪৪ জন এবং এ পর্যন্ত ১১ লাখ ৫২ হাজার ৬০৪ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। বাসস।

User Comments

  • জাতীয়